নুসরাত হত্যা: আসামিদের সম্পৃক্ততা দেখানো হবে ভিডিও চিত্রে

|

ফেনী প্রতিনিধি :

ফেনীর আলোচিত মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় আজ সোমবার ৩৭ তম দিবসের সাক্ষ্যগ্রহণ হবে।

আজ সোমবার ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশীদের আদালতে এই মামলার সর্বশেষ ৯২ নম্বর সাক্ষী ও তদন্তকারী কর্মকর্তা পিবিআই’র ফেনী শাখার পরিদর্শক মো. শাহ আলম আংশিক সাক্ষ্য দিবেন। এর আগে গত ২১ ও ২৫ আগস্ট দুই দিন সাক্ষ্য দিয়েছেন।

পিবিআই পরিদর্শকের জবানবন্দি শেষে নুসরাত হত্যা মামলার আসামিদের সম্পৃক্ততার অডিও ও নুসরাত দেয়া জবানবন্দির ভিডিও পাওয়ার পয়েন্টের মাধ্যমে আদালতে বিচারকের সামনে বেশ করবেন তদন্তকারী কর্মকর্তা মো.শাহ আলম। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাদি পক্ষের আইনজীবী শাহজাহান সাজু। এরপর আসামী পক্ষের আইনজীবীরা তাকে জেরা করবেন।

মামলার বাদি পক্ষের আইনজীবী শাহজাহান সাজু জানান, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শাহ আলমের জবানবন্দি শেষে নুসরাত হত্যা মামলার আগে-পরে আসামীরা হত্যাকাণ্ডে অংশ গ্রহণ করে যে উল্লাস করেছে এবং তাদের কথোপকথন ও নুসরাতের জবানবন্দির ভিডিও ডিজিটাল পদ্ধতিতে পাওয়ার পয়েন্টের মাধ্যমে বিচারককে দেখানোর অনুমতি চাইলে বিচারক তা গ্রহণ করেছে এবং প্রদর্শনের অনুমতি দিয়েছে। বাংলাদেশের ইতিহাসে এটি প্রথম মামলা; কোনও হত্যাকাণ্ডের ঘটনার রহস্য উন্মোচনের জন্য ভিডিও প্রোজেক্টরের মাধ্যমে তা প্রদর্শন করা।

এবিষয়ে আসামি পক্ষের আইনজীবী গিয়াস উদ্দিন নান্নু বলেন,তারা মামলার সাক্ষ্য আইনের বিধান অমান্য করে তারা ডিজিটাল পদ্ধতি ভিডিও দেখাবে। এসব কিছু একতরফাভাবে করছে। আসামিদেরকে ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত করার জন্য দুরভিসন্ধিমূলক এসব কাজ করছে।

এর আগে গত ২৭ জুন মামলার বাদী ও প্রথম সাক্ষী নুসরাতের বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমানের সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়। নুসরাতের ছোট ভাই রাশেদুল হাসান রায়হান, নুসরাতের মা শিরিন আখতার ও বাবা মাওলানা একেএম মুসাসহ ৯১ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ ও জেরা শেষ হয়।

চলতি বছরের ২৭ মার্চ সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে যৌন নিপীড়নের দায়ে মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ৬ এপ্রিল ওই মাদরাসা কেন্দ্রের সাইক্লোন শেল্টারের ছাদে নিয়ে অধ্যক্ষের সহযোগীরা নুসরাতের শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়। টানা পাঁচদিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ে ১০ এপ্রিল মারা যান নুসরাত জাহান রাফি।









Leave a reply