ট্রিবিউট টু দ্য ডন!

|

রিফাত এমিল

ক্রিকেট ইতিহাসের সর্বকালের সেরা ব্যাটসম্যান স্যার ডোনাল্ড জর্জ ব্র‍্যাডম্যান ১৯০৮ সালের ২৭ আগস্ট জন্মগ্রহণ করেন নিউ সাউথ ওয়েলসে। ক্রিকেট ডনের আজ ১১১তম জন্মবার্ষিকী। ডনের টেস্ট শতকের সংখ্যা ২৯টি। তাই জন্মদিনে ডনকে নিয়ে ২৯টি কথা। জানা, অজানা, বিস্ময়ের ঘোরে ক্রিকেট ডনকে চেনার চেষ্টা!

১. টেস্ট ক্যারিয়ারে ব্র‍্যাডম্যান মাত্র একবার রান আউট হয়েছিলেন, আর একবার হিট উইকেট। একমাত্র ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্টে ২৯৯ রানে অপরাজিত থাকা ব্যাটসম্যান ব্র‍্যাডম্যান।
২. মাত্র ১১ বছর বয়সে জীবনের প্রথম ক্রিকেট ম্যাচ খেলেছিলেন ব্র‍্যাডম্যান। রান করেছিলেন ৫৫। প্রথম শতক করেছিলেন বাউরাল হাইস্কুলের হয়ে ১২ বছর বয়সে।
৩. ১৫ বছর বয়সে ব্র‍্যাডম্যান ক্রিকেট ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন টেনিস খেলার জন্য। পরে অবশ্য ফিরেন সেই ক্রিকেটেই। ভাগ্যিস ফিরেছিলেন!
৪. একবছর প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট খেলে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ব্র‍্যাডম্যানের। ব্রিসবেনে অভিষিক্ত ডন প্রথম টেস্টে রান করেছিলেন ১৮,১। পরের টেস্টে বাদ পড়েন। ডনও ড্রপড হয়েছিলে!
৫. ১৯৩০ সালে প্রথমবার ইংল্যান্ড সফর করেন ডন। বিস্ময়ের শুরু যেখান থেকে, পাঁচ ম্যাচের সেই সিরিজে রান করেছিলেন অবিশ্বাস্য ৯৭৪।
৬.১৯৩০ সালের বিস্ময়কর ডনকে রুখতে এরপর বডিলাইন বোলিংয়ের জন্ম দেয় ইংলিশরা।
৭. ইংল্যান্ডে ৯৭৪ রান করার পরে এসে সিডনির এক স্পোর্টস শপে সেলসম্যানের কাজ নেন ব্র‍্যাডম্যান।
৮. বিশ্বযুদ্ধের কারণে ব্র‍্যাডম্যানের ক্যারিয়ারের প্রায় আট বছর ঝরে যায় যখন তিনি ছিলেন ক্যারিয়ারের সেরা ফর্মে। এই ৮ বছর পর ফেরেন ৩৮ বছর বয়সে। বিশ্বযুদ্ধের পর ১৫ টেস্ট খেলে করেন ৮ শতক।
৯. ১৯৪৮ সালে ক্যারিয়ারের শেষ টেস্ট খেলার আগে তার গড় ছিল ১০১.৩৯। শেষ ইনিংসে মাত্র ৪ রান করলে তার গড় থাকত ঠিক ১০০।
১০. ব্র‍্যাডম্যান অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের ১০টি ভেন্যুতে টেস্ট খেলেছেন। তার টেস্টে ডাকের সংখ্যাও ১০।
১১. ডন ব্র‍্যাডম্যান টেস্ট সিরিজ খেলেছিলেন ১১টি। ৭টি সিরিজে করেছিলেন ৫০০ এর অধিক রান।
১২. ব্র‍্যাডম্যান নির্বাচক ছিলেন প্রায় ৩৭ বছর। দুই মেয়াদে ছিলেন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান।
১৩. ঘরের মাঠ অ্যাডিলেডে খেলা থাকলে ২/৩ ঘণ্টাকর্মস্থলেও যেতেন।
১৪. নার্ভাস নাইনটিজে কখনো আউট হননি ব্র‍্যাডম্যান।
১৫. ৮০ ইনিংসের ক্যারিয়ারের ৭০বার আউট হয়েছিলেন ব্র‍্যাডম্যান, ১০ বার অপরাজিত।
১৬. প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ১১৭ শতক রয়েছে ব্র‍্যাডম্যানের।
১৭. সর্বকালের সেরা ব্যাটসম্যান ব্র‍্যাডম্যান টেস্টে বল করেছিলেন ১৫৮টি, রান দিয়েছেন ৭২। উইকেট সংখ্যা ২, মেডেন ওভার ৩। ইকোনমি বেশ ভালো, ২.৭৩।
১৮. ক্যারিয়ারের ৬৪১টি চার মেরেছিলেন ব্র‍্যাডম্যান, ছয়ের সংখ্যা ৬টি।
১৯. ক্যারিয়ারে ৩-৭ পজিশনে ব্যাটিং করেছেন ব্র‍্যাডম্যান। সর্বাধিক তিন নাম্বারের ব্যাটিং করেছেন ৫৬ ইনিংস, চার নাম্বারে ১০ ইনিংস, পাঁচ ও সাত নাম্বারে ৩ ইনিংস, ছয় নাম্বারে ৮ ইনিংস। তিন নাম্বারে ডনের ব্যাটিং গড় ছিল ১০৩.৬৩। ১০০ এর কম ছিল চার ও ছয় নাম্বার ব্যাটিং পজিশনে।
২০. ব্র‍্যাডম্যান চারটি দলের বিপক্ষে টেস্ট খেলেছিলেন। ৩৭ ম্যাচ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে, সমাম ৫টি করে টেস্ট ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা ও উইন্ডিজের বিপক্ষে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ডনের গড় ছিল ৮৯.৭৯, ভারতের বিপক্ষে ১৭৮.৭৫, দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ২০১.৫ ও উইন্ডিজের বিপক্ষে ৭৪.৫।
২১. ঘরের চেয়ে বিদেশে বেশি ব্যাটিং গড় ছিল ব্র‍্যাডম্যানের। অস্ট্রেলিয়ায় ৯৮.১৩ ব্যাটিং গড়ের ডনের ইংল্যান্ডে গড় ছিল ১০২.৮৫।
২২. সময়ের ১৩ পঞ্জিকাবর্ষ ক্রিকেট খেলেছেন ব্র‍্যাডম্যান। ১৯৩০ সালে ৯৭৮ রান করা ডন পরের বছর করেছিলেন ৯৫০। তবে সব ছাপিয়ে নিজের বিদায়ী বছর করেছিলেন ১০২৫ রান। সর্বোচ্চ গড় ২১০.৫ ছিল ১৯৪৬ সালে, সেবছর ২ ইনিংসে ২৩৪ রান করেছিলেন।
২৩. ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্র‍্যাডম্যান সর্বোচ্চ ২৮বার ব্যাটিং করেছেন, প্রথম ইনিংসে ২২বার, তৃতীয় ও চতুর্থ ইনিংসে ব্যাট করেছেন ১৫ বার করে। প্রথম ইনিংসে গড় ছিল ১১৩.৬৭, দ্বিতীয় ইনিংসে ৮৫.৫৬, তৃতীয় ইনিংসে ১৩০.৪২ ও চতুর্থ ইনিংসে ৭৩.৪০।
২৪. অধিনায়ক হিসেবে ব্র‍্যাডম্যান অস্ট্রেলিয়াকে ২৪ ম্যাচ নেতৃত্ব দিয়ে জিতেছেন ১৫ ম্যাচ, ড্র ৬ ম্যাচ আর পরাজয় ৩ ম্যাচ। এই ২৪ ম্যাচে ব্র‍্যাডম্যান রান করেছেন ৩১৪৭, গড় ছিল ১০১.৫১।
২৫. ৫২ টেস্টে ফিল্ডার ব্র‍্যাডম্যান নিয়েছেন ৩২ ক্যাচ। ম্যাচে সর্বোচ্চ ৩টি ক্যাচ নিয়েছিলেন ১৯৩৭ সালে মেলবোর্নে ইংলিশদের বিপক্ষে।
২৬. ব্র‍্যাডম্যান টেস্টে ৮০ ইনিংসের ৪২বার পেরিয়েছেন ৫০ রান যার ২৯টি শতক।
২৭. ডন জীবনে একজনকে দেখে বলেছিলেন; ‘ও আমার মতো খেলে!’ সে শচীন টেন্ডুলকারের সাথে ব্র‍্যাডম্যানের দেখা হয়েছিল ২৭ আগস্ট, ১৯৯০। ডনের ৯০তম জন্মদিন ছিল সেদিন। সাথে সঙ্গী হিসেবে শেন ওয়ার্নও ছিলেন।
২৮. ব্র‍্যাডম্যান ৮০ ইনিংসে ৭০ বার আউট হয়েছেন যার মধ্যে ২৩বার বোল্ড, ২৯ কট, ১০ কট বিহাইন্ড, লেগ বিফোরের ফাঁদে ৬বার ও একবার করে রান আউট ও হিট উইকেট।
২৯. ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে মূল্যবান উইকেট স্যার ডন ব্র‍্যাডম্যানের উইকেট নিয়েছেন ২৯ জন বোলার। যার মধ্যে ইংলিশ পেসার স্যার অ্যালেক বেডসার ডনকে আউট করেছে সর্বোচ্চ ৮বার।

ক্রিকেটে অসংখ্য রথী মহারথী ব্যাটসম্যান এসেছেন। কিন্তু ডনের জন্য এক নম্বর স্থান ফাঁকা রেখে অন্যদের জায়গা হবে দুই নম্বর থেকে। ক্রিকেটের ডন তো একজনই। শুভ জন্মদিন স্যার ডোনার্ল্ড ব্র‍্যাডম্যান।

লেখক: রিফাত এমিল









Leave a reply