কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিএমপি কমিশনার

|

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন অ্যাডিশনাল আইজিপি জনাব মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম বিপিএম (বার)। এর আগে, তিনি পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা থানার নওদাবন্দ বিল গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে ১৯৬২ খ্রিস্টাব্দে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম মোঃ শওকত আলী ও মাতার নাম বেগম সুফিয়া খাতুন।

শিক্ষা জীবনে তিনি আলমডাঙ্গা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় হতে এসএসসি এবং আলমডাঙ্গা ডিগ্রি কলেজ হতে এইচএসসি পাশ করেন এবং শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় হতে এগ্রিকালচার বিষয়ে কৃতিত্বের সাথে অনার্স ও মাস্টার্স ডিগ্রি লাভ করেন। অ্যাডিশনাল আইজিপি জনাব মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম বিপিএম (বার) ৮ম বিসিএস এর মাধ্যমে বাংলাদেশ পুলিশে যোগদান করেন। কর্মজীবনের শুরুতে তিনি এএসপি হিসাবে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ, খাগড়াছড়ি জেলা ও মৌলভীবাজার জেলায় দায়িত্ব পালন করেন। এরপর পদোন্নতি পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদে খাগড়াছড়ি জেলা ও ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে দায়িত্ব পালন করেন। পুলিশ সুপার হিসাবে ৭ এপিবিএন-পটুয়াখালী জেলা, ২ এপিবিএন-সুনামগঞ্জ জেলা, কুমিল্লা জেলায় পেশাদারিত্বের সাথে উপর অর্পিত দায়িত্ত্ব পালনকরেন।

তিনি অতিরিক্তি পুলিশ কমিশনার এবং পুলিশ কমিশনার হিসাবে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ডিআইজি হিসেবে চট্রগ্রাম রেঞ্জ এবং ঢাকা রেঞ্জের দায়িত্ব পালন করেন। এরপর পদন্নোতি প্রাপ্ত হয়ে অ্যাডিশনাল আইজিপি হিসাবে এন্টি টেররিজম ইউনিটে এবং পরবর্তীতে অ্যাডিশনাল আইজিপি হিসাবে পুলিশ হেডকোয়ার্টাসে যোগদান করেন। সর্বশেষ পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) দায়িত্ব পালন করেন শফিকুল ইসলাম।

পেশাদারিত্ব, সততা ও দক্ষতার স্বীকৃতি হিসাবে তিনি পরপর দুইবার বাংলাদেশ পুলিশের সর্বোচ্চ পুরস্কার বিপিএম পদক লাভ করেন। ২০১৪ সালে ডিআইজি, চট্টগ্রাম রেঞ্জ এবং ২০১৭ সালে ডিআইজি, ঢাকা রেঞ্জে দায়িত্বপালনকালে তিনি এই স্বীকৃতি পান।

অ্যাডিশনাল আইজিপি জনাব মোহাম্মদ শফিকুল ইসলামের সহধর্মিনী জনাব খাদিজাতুল কুবরা একজন গৃহিনী। তাদের দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে।









Leave a reply