টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে সেই রোহিঙ্গা নেতা নুর মোহাম্মদ নিহত

|

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় বন্দুকযুদ্ধে রোহিঙ্গা নেতা নুর মোহাম্মদ (৩৪) নিহত হয়েছেন।

পুলিশের দাবি, নিহত রোহিঙ্গা নেতা নূর মোহাম্মদ পাহাড়ি জনপদের ত্রাস, সন্ত্রাসী ও ইয়াবা গডফাদার। তিনি যুবলীগ নেতা ওমর হত্যা মামলার প্রধান আসামি। রোববার ভোর পৌনে ৬টার দিকে উপজেলার হ্নীলা জাদিমোড়া ২৭নং ক্যাম্পের পাহাড়ি এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নুর মোহাম্মদ একই এলাকার রোহিঙ্গা কালা মিয়ার ছেলে।

এ ব্যাপারে টেকনাফ মডেল থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, রোববার ভোর পৌনে ৬টার দিকে বিশেষ পুলিশের একটি দল নুর মোহাম্মদকে নিয়ে উপজেলার হ্নীলা জাদিমোড়া ২৭নং ক্যাম্পের পাহাড়ি জনপদের বাড়িতে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার অভিযানে যায়।

এ সময় রোহিঙ্গা উগ্রপন্থী সংগঠন এবং মাদককারবারি সিন্ডিকেটের সশস্ত্র সদস্যরা পুলিশকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করে নুর মোহাম্মদকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এ সময় গুলিবিদ্ধ হন নুর মোহাম্মদ।

এ সময় উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় আহত হন পুলিশের ওসি (তদন্ত) এবিএমএস দোহা (৩৬), কনস্টেবল আশেদুল (২১), অন্তর চৌধুরী (২১)।

ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয় চারটি এলজি, একটি থ্রি কোয়াটার রাইফেল, ১৮ রাউন্ড গুলি, ২০ রাউন্ড খালি খোসা।

পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরির পর মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

ওসি বলেন, নুর মোহাম্মদ মোস্ট ওয়ানটেড একাধিক মামলার পলাতক আসামি ও যুবলীগ নেতা ওমর হত্যা মামলার প্রধান আসামি।

সম্প্রতি কিশোরী কন্যার কান ফোঁড়ানো অনুষ্ঠানকে ঘিরে বিশাল আয়োজন করে এই রোহিঙ্গা নেতা। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিতরা এক কেজি স্বর্ণালংকার ও নগদ ৪৫ লাখ টাকাসহ আরও নানা উপহার নিয়ে আসে।









Leave a reply