ডাকাতি করতে এসে চার নারীকে ধর্ষণের প্রমাণ পেয়েছে পুলিশ

|

চট্টগ্রামের কর্ণফুলী উপজেলায় বাড়িতে ডাকাতি করতে ঢুকে চার নারীকে ধর্ষণের ঘটনার প্রমাণ পেয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশ-পিবিআই। বিকালে আদালতের প্রসিকিউশন শাখায় দেড় বছর আগে, দেশজুড়ে চাঞ্চল্য সৃষ্টি করা এই ধর্ষণ মামলার অভিযোগ পত্র দাখিল করেছে তদন্ত কর্মকর্তা সন্তোষ কুমার চাকমা।

অভিযোগপত্রে বলা হয়, ডাকাতির উদ্দেশ্যে ঢুকে, বাড়িতে কোন পুরুষ না থাকায় ওই চার নারীকে ধর্ষণ করে ৬ পেশাদার ডাকাত।

সন্তোষ কুমার চাকমা বলেন, স্পর্শকারত মামলা হওয়ায় সর্তকতার সাথে মামলাটির তদন্ত করা হয়েছে। তিনি বলেন, গণমাধ্যমে চারজন নারীকে ধর্ষণের কথা বলা হলেও, তদন্তে একজনকে গণধর্ষণের প্রমাণ পাওয়া গেছে এবং অন্য আরেকজনকে নারীকে এক ডাকাত ধর্ষণ করেছিল। আসামিদের মধ্যে ২ জনকে ডাকাতির অভিযোগে, ৩ জনকে ধর্ষণের অভিযোগে এবং বাকি আরেকজনকে সহায়তার অভিযোগে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে অভিযোগ পত্র দেয়া হয়েছে। ৬ আসামির মধ্যে একজন পলাতক রয়েছে।

২০১৭ সালে ১২ ডিসেম্বর গভীর রাতে কর্ণফুলী উপজেলার বড় উঠান ইউনিয়নের এক জন প্রবাসীর বাড়িতে চার নারী ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ঘটনার ৫ দিন পর মামলা হয় সিএমপির কর্ণফুলী থানায়। পরে পুলিশ সদর দফতরের নির্দেশে ২৭ ডিসেম্বর মামলার তদন্ত ভার দেয়া হয় পিবিআইকে।









Leave a reply