৪ শিশুকে ধর্ষণ, স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী ধর্ষকের

|

বগুড়া ব্যুরো:

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় একই এলাকার স্কুল পড়ুয়া চার শিশুকে ধর্ষণের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে মামলার একমাত্র আসামী প্রতিবেশী ভ্যানচালক জয়নাল আবেদীন।

আজ বুধবার বিকেলে বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এই জবানবন্দী রেকর্ড করা হয়।

এর আগে দুপুরে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে পাশবিকতার শিকার চার শিশুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

জেলা পুলিশের শেরপুর-ধুনট সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজীউর রহমান যমুনা নিউজকে জানান, মঙ্গলবার রাতেই প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পঞ্চাশোর্ধ্ব জয়নাল আবেদীন এই চার শিশুকে ধর্ষণের কথা পুলিশের কাছে স্বীকার করেন। বিকেলে আদালতে নেয়ার পর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক শফিকুল ইসলামের কাছেও ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেন জয়নাল।

এর আগে দুপুরে ধুনট উপজেলা সদর থেকে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগে আনা হয় ধর্ষণের শিকার চার শিশুকে। বিভাগের শিক্ষক ডাক্তার ওয়াহিদা ওমর শাপলা জানান, এই চার শিশুকে ধর্ষণের আলামত নিশ্চিত হতে ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের তিন চিকিৎসকের সমন্বয়ে একটি বোর্ড গঠন করা হয়েছে। বোর্ডের সদস্যরা ওই চার শিশুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে নমুনা সংগ্রহ করে নিরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠিয়েছেন। ল্যাব-নিরীক্ষার প্রতিবেদন পাবার পর ধর্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত করা যাবে।

ধুনট উপজেলার একই প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ুয়া এই চার শিশুকে গত শুক্রবার থেকে গেলো রোববার পর্যন্ত পর্যায়ক্রমে কৌশলে বাড়িতে ডেকে ৫২ বছর বয়সী প্রতিবেশী ভ্যানচালক জয়নাল আবেদীন ধর্ষণ করে। শিশুদের পরিবারের এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলার মথুরাপুর বাজার এলাকা থেকে থানা পুলিশ আটক করে তাকে। রাতেই পাশবিকতার শিকার দুই শিশুর অভিভাবক জয়নালকে আসামীকে করে ধুনট থানায় মামলা দায়ের করেন।









Leave a reply