আফগানিস্তানকে ১৩৮ রানে আটকালো বাংলাদেশ

|

ত্রিদেশীয় সিরিজে আফগানিস্তানের বিপক্ষে নিয়মরক্ষার ম্যাচ আজ। কিন্তু টাইগারদের জন্য এটি বড় পরীক্ষাই বলতে হবে। দেশের মাটিতে টেস্টে হারার পর প্রথম টি-টোয়েন্টিতেও আফগানদের কাছে হেরেছে সাকিব আল হাসানের দল। শনিবারের ম্যাচটি তাই টাইগারদের জন্য বিশেষ কিছুই। বড় সংগ্রহের দিকে ছুটতে থাকা আফগানদের ১৩৮ রানে আটকে প্রাথমিক কাজটা ভালোভাবেই করেছে সাকিব আল হাসানের দল।

দারুণ শুরু পেয়েও ইনিংসের মাঝপথে পথ হারিয়ে ধুঁকেছে মোহাম্মদ নবীরা। বোলারদের দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তনে আফগানিস্তানকে ১৩৮ রানে আটকে দিয়েছে বাংলাদেশ। দলীয় ৭ রানে মাহমুদউল্লাহ সহজ ক্যাচ ছেড়ে দেওয়ায় জীবন পেয়েছিলেন রহমানউল্লাহ গুরবাজ। সুযোগ কাজে লাগিয়ে ৯ ওভারে ৭৫ রান তুলে ফেলেছিল আফগানিস্তান। এরপর আফিফ ঝলক। টুর্নামেন্টে প্রথমবারের মতো বল হতে পেয়েই দেখালেন জাদু। দশম ওভারে বল হাতে নিয়ে তৃতীয় বলেই ভাঙেন আফগানদের ৭৫ রানের জুটি। ৩৫ বলে ৪৭ রান করা জাজাইকে মোস্তাফিজের ক্যাচ বানিয়েছেন আফিফ। এক বল পরেই আসগর আফগানও ক্যাচ দিয়েছেন আফিফের বলে। ডাবল উইকেট মেডেন দিয়ে বোলিং স্পেল শুরু হলো আফিফের।

আফগান শিবিরে তৃতীয় আঘাত হানেন কাটার মাস্টার খ্যাত মোস্তাফিজুর রহামান। তার শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন অন্য ওপেনার রহমানউল্লাহ গুরবাজ। ২৭ বলে ২৯ রান করে আউট হন তিনি। বাংলাদেশের বিপক্ষে আগের ম্যাচে ব্যাটিং তাণ্ডব চালিয়ে ৮৪ রানের ইনিংস খেলা মোহাম্মদ নবীকে শনিবার উইকেটে সেট হওয়ার আগেই সাজঘরে ফেরান সাকিব। ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে সাকিবের তৃতীয় শিকারে পরিণত হয়ে সাজঘরে ফেরেন নবী।

চলমান ত্রিদেশীয় সিরিজে আগের তিন ম্যাচের দুটিতে ব্যাট মাত্র ১০ রান করার সুযোগ পান আফগান সাবেক অধিনায়ক গুলবাদিন নাইব। অফ ফর্মে থাকা এ অলরাউন্ডার রান আউট হওয়ার আগে মাত্র ১১ রান করার সুযোগ পান। মোহাম্মাদ সাইফউদ্দিনের বলে বোল্ড হয়ে দলীয় ১০৯ রানে ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে ফেরেন নজিবুল্লাহ জাদরান। করিম জানাতকে মুশফিকের ক্যাচে পরিণত করে সাজঘরে ফেরান শফিউল। শেষ দিকে রশিদ খানরা প্রত্যাশিত ব্যাটিং করতে না পারায় ১৩৮ রানের বেশি করতে পারেনি আফগানরা।

মূলত, ৩৯ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে বড় স্কোরের স্বপ্ন ধূলিস্যাৎ হয়ে গেছে আফগানদের।









Leave a reply