‘কাশ্মিরের বাড়িগুলোতে সোনার ছাদ থাকতো’

|

জম্মু ও কাশ্মিরের মানুষের ‘সোনার ছাদযুক্ত বাড়ি’ থাকতো যদি বিগত সরকারগুলি এই অঞ্চলের উন্নয়নের জন্য কেন্দ্রের দেওয়া অর্থ ব্যয় করতো। এমন মন্তব্য করেছেন বিজেপি সভাপতি এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তার মতে, সংবিধানের ৩৭০ ধারা রদ করে জম্মু ও কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করার সিদ্ধান্তে এই অঞ্চলের অগ্রগতি হবে।

রোববার মুম্বাইয়ে এক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন। তার দাবি, ভারত সরকার জম্মু-কাশ্মির গঠনের পর থেকে ২.২৭ লক্ষ কোটি টাকা ব্যয় করেছে এর উন্নয়নের জন্য। এই অর্থ যদি সত্যিই মানুষের কাছে যেত তবে তাদের বাড়িতে সোনার তৈরি ছাদ থাকতো ।

বিজেপি সভাপতি আরও বলেন, ৩৭০ ধারা, যা জম্মু ও কাশ্মিরকে বিশেষ মর্যাদা দিয়েছিল, সেটির কারণেই সরকারগুলি দুর্নীতি দমন ব্যুরো প্রতিষ্ঠা করতে দেয়নি, কারও কারও পক্ষে এখানকার উন্নয়নের জন্য কেন্দ্রের তরফ থেকে যে অর্থ প্রেরণ করা হয়েছিল তা ‘লুট’ করা সহজ হয়েছিলো।

জওহরলাল নেহেরু জম্মু ও কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা দিয়েছিলেন এবং তারপর থেকেই এই উপত্যকায় সন্ত্রাসবাদ বাড়তে থাকে এমন মন্তব্য করে বিজেপি সভাপতি বলেন, ৪০ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে, এবং কাশ্মিরি পণ্ডিত, সুফি, এবং শিখদের, ১৯৯০ থেকে ২০০০ –এই ১০ বছরে তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

৩৭০ ধারাকে রাহুল গান্ধি রাজনৈতিক ইস্যু বলে অভিহিত করেছিলেন। সেটির কঠোর সমালোচনা করেছেন অমিত শাহ। বলেছেন, আপনি (রাহুল) এখন রাজনীতিতে এসেছেন, কিন্তু ৩৭০ ধারা বিলুপ্তির জন্য কাশ্মিরে তিন প্রজন্ম ধরে জীবন দিয়েছে বিজেপি। আমাদের কাছে এটা রাজনৈতিক ইস্যু নয়। ভারত মাকে অখণ্ড রাখতে এটা আমাদের লক্ষ্য।

গত ৫ অগাস্ট অমিত শাহ জম্মু ও কাশ্মির থেকে ৩৭০ অনুচ্ছেদ প্রত্যাহারের ঘোষণায় কেন্দ্রের নেতৃত্ব দিয়েছেন। লোকসভা নির্বাচনের সময় এটি বিজেপির নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিও ছিল।









Leave a reply