জঙ্গি টার্গেটে মোদি-অমিত; গোয়েন্দাদের ‘হাই অ্যালার্ট’

|

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালকে টার্গেট করছে জঙ্গিরা। গোয়েন্দা রিপোর্টে এমন তথ্য পাওয়ার পর ‘হাই অ্যালার্ট’ জারি করেছে দেশটির আইনশৃঙ্ক্ষলা বাহিনী। ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সূত্রে এ খবর জানিয়েছে এনডিটিভি। সমস্ত রাজ্যকেই সতর্কবার্তা পাঠানো হয়েছে।

শুধু সরকারের শীর্ষ ব্যক্তিদেরই নয়, সামরিক ঘাঁটিগুলিকেও টার্গেট করার খবরও পাওয়া গিয়েছে বিভিন্ন সংস্থা থেকে। সতর্কতা জারি করা হয়েছে, শ্রীনগর, অবন্তীপুরা, জম্মু, পাঠানকোট এবং হিন্দোনের বিমানঘাঁটিতে। নিরাপত্তা বৃদ্ধিতে অস্ত্র-সরঞ্জাম মোতায়েন করা হয়েছে।

গোয়েন্দা তথ্যে পাওয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, বিমানঘাঁটিতে আত্মঘাতী হামলার ছক কষছে পাকিস্তানের জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদ। দেশটির অসামরিক বিমান নিরাপত্তা ব্যুরো একটি চিঠি পেয়েছে, জইশের সামসের ওয়ানি নামে কারও লেখা, ওই চিঠিতে দাবি করা হয়েছে, ৩৭০ ধারা নিয়ে সরকারের পদক্ষেপের বদলা নেওয়া হবে।

সূত্রের খবর, জম্মু ও কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহার এবং রাজ্যটিকে ভেঙে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত করার সরকারের পরিকল্পনার পর থেকেই হামলার পরিকল্পনা করছে পাক জঙ্গি সংগঠনগুলি। ভারতের জম্মু ও কাশ্মির নিয়ে পদক্ষেপের সমালোচনা করেছেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। আন্তর্জাতিক মহলেও এর পক্ষে-বিপক্ষে আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

গোয়েন্দাদের ধারণা, পাকিস্তান থেকে ড্রোনের মাধ্যমে অনেক সংখ্যায় একে ৪৭ রাইফেল, গ্রেনেড এবং স্যাটেলাইন ফোন ফেলা হয়েছে। ১০ দিনে মোট ৮ বার, অস্ত্র, স্যাটেলাইট ফোন, ভারতের মাটিতে ফেলা হয়েছে বলে সূত্রের খবর। সাধারণ মানুষের জন্য স্যাটেলাইট ফোন ব্যবহার ভারতে নিষিদ্ধ। এসব সরঞ্জাম কিছু নাকি উদ্ধারও করা হয়েছে। সেগুলো জম্মু ও কাশ্মিরে জঙ্গিদের হাতে পাঠানো হচ্ছিল, গোয়েন্দা সূত্রের বরাতে এমনটাই দাবি এনডিটিভির।









Leave a reply