সামান্য বৃষ্টিতে মহাসড়কে হাঁটু সমান পানি!

|

আহমেদ নাসিম আনসারী, ঝিনাইদহঃ
সামান্য বৃষ্টিতে মহাসড়কের বড় বড় গর্তে হাঁটু সমান পানি জমে যায়। পথচারীরা প্যান্ট উচু করে মহাসড়ক পারাপার হয়। এই অবস্থা ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া মহাসড়কের শৈলকুপা উপজেলার ভাটই বাজারের। একই অবস্থা ওই সড়কের গাড়াগঞ্জ বাজার এলাকার। মহাসড়কে বড় বড় গর্ত তৈরি হয়েছে। মাঝে মধ্যেই গাড়ি গর্তে পড়ে আটকে যাচ্ছে। এই মহাসড়কের পৌনে এক কিলোমিটার সকলের জন্য গলার কাঁটায় পরিণত হয়েছে বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

সড়ক ও জনপথ বিভাগের তথ্যানুযায়ী ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া মহাসড়কে ঝিনাইদহ অংশে ৪৫ কিলোমিটার মহাসড়ক রয়েছে। এই মহাসড়কটি ঝিনাইদহ শহরের আবাবপুর থেকে শেখপাড়া বাজার পর্যন্ত। এই অংশে বেশ কয়েকটি বাজার রয়েছে। যার মধ্যে ভাটই ও গাড়াগঞ্জ বাজার এলাকায় মহাসড়কের অবস্থা খুবই খারাপ।

স্থানীয়রা জানান, ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া মহাসড়কের ভাটই বাজারের আধা কিলোমিটার ও গাড়াগঞ্জ বাজারের ৩ শত মিটার মহাসড়ক একেবারেই চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

ভাইট বাজারের ব্যবসায়ী আমিরুল ইসলাম জানান, বেশ কয়েক বছর তারা এই কষ্ট ভোগ করছেন। ইতিপূর্বে পিচ রাস্তার ওপর ইটের সলিং করে দেওয়া হয়েছিল। সেটাও নষ্ট হয়ে গেছে। সড়কে বড় বড় গর্ত তৈরি হয়েছে। যেখানে সামান্য বৃষ্টি হলেই পানি জমে।

কুষ্টিয়া থেকে ছেড়ে আসা গড়াউ পরিবহনের চালক মনিরুল ইসলাম জানান, গাড়ি ভরা যাত্রী নিয়ে এই ভাঙ্গা সড়কে চলাচল করতে খুবই কষ্ট হয়। সারাক্ষণ আতঙ্কে থাকেন, কখন না আবার যাত্রীবাহী বাস উল্টে যায়।

গাড়াগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী সামছুল আলম জানান, ঝিনাইদহ বা কুষ্টিয়া থেকে তারা মোটামুটি ভালো ভাবে এসে এই দুই স্থানে আটকে যান। এই জায়গা দুইটি দিয়ে চলাচল করতে গেলেই ভয় লেগে যায়। কখন কি ঘটে এমন একটা আতঙ্ক নিয়ে চলাচল করতে হয়।

এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী নজরুল ইসলাম জানান, তারা এগুলো মেরামত করার জন্য ইতিমধ্যে ঠিকাদার নির্বাচন সম্পন্ন করেছেন। অল্পদিনের মধ্যে কাজ শুরু হয়ে যাবে আশা করছেন।









Leave a reply