সৌদি সীমান্তে ঢুকে হামলা, বহু সৈন্য আটকের দাবি হুথিদের

|

ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহী সংগঠন বাহিনীর হাতে সৌদি সামরিক বাহিনীর তিনটি ব্রিগেড পুরোপুরি ধ্বংস হয়েছে। কয়েক ‘হাজার’ সেনা, সামরিক সরঞ্জাম ও সাঁজোয়া যান আটক করা হয়েছে বলে দাবি কর হয়েছে সংগঠনটির পক্ষ থেকে।

শনিবার সন্ধ্যায় এক বিবৃতিতে হুথি সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়া সারি বিবিসিকে বলেন, ইয়েমেন সীমান্তবর্তী সৌদি আরবের নাজরান শহরে ৭২ ঘণ্টাব্যাপী হামলাটি চালানো হয়। হামলায় ইয়েমেনের ড্রোন, ক্ষেপণাস্ত্র ও বিমান প্রতিরক্ষা ইউনিটগুলো সমর্থন যুগিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, হুতিরা সৌদি সেনাবাহিনীর বহু কর্মকর্তাসহ কয়েক হাজার সৈন্য, বিপুল পরিমাণ সামরিক সরঞ্জাম এবং কয়েকশ সাঁজোয়া যান আটক করেছে। এসময় আগ্রাসী বাহিনীর শতাধিক সেনা হতাহত হয়েছে।

আজ রোববার আটক সৌদি সেনাদের ছবি এবং ভিডিও আল-মাসিরা টেলিভিশনে সম্প্রচার করা হবে বলেও তিনি জানান।

২০১৫ সালের মার্চ মাসে ইয়েমনে সৌদি আরব ও তার মিত্রদের সামরিক আগ্রাসন শুরুর পর এটিকে ‘খোদার দেয়া সবচেয়ে বড় জয়’ বলে অভিহিত করেছেন ইয়েমেনের সামরিক বাহিনীর এই মুখপাত্র।

গত ১৪ সেপ্টেম্বর সৌদি আরবের ‘আবকাইক’ ও ‘খুরাইস’ তেল শোধনাগারে ১০টি পাইলটবিহীন বিমান বা ড্রোনের সাহায্যে ভয়াবহ হামলা চালায়। হামলার কারণে দিনে অপরিশোধিত তেলের উৎপাদন ৫৭ লাখ ব্যারেল কমেছে, যা সৌদির মোট উৎপাদনের প্রায় অর্ধেক।









Leave a reply