প্রত্যাবাসন কার্যকর না হলে আঞ্চলিক নিরাপত্তার জন্য রোহিঙ্গারা বড় হুমকি: প্রধানমন্ত্রী

|

ছবি: বিবিসি বাংলা

মিয়ানমারের তৈরি করা রোহিঙ্গা সংকটে ভুগছে বাংলাদেশ। প্রতিবেশীর সাথে সংঘাত নয় বরং শান্তিপূর্ণ সমাধান চায় ঢাকা। গেলো সপ্তাহে ‘ওয়াশিংটন পোস্ট’কে দেয়া সাক্ষাৎকারে এ মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার, সংবাদপত্রটির ওয়ার্ল্ডভিউ ক্রোড়পত্রে প্রকাশিত হয় ‘রোহিঙ্গা সংকট বাংলাদেশের বোঝা হয়ে থাকতে পারে না’ শীর্ষক সাক্ষাৎকারটি।

সেখানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আন্তর্জাতিক মহল যদি ভাবে মিয়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের মাধ্যমে রোহিঙ্গা সংকটের সমাধান আসবে তাহলে সেটা অবশ্যই ভালো সিদ্ধান্ত।

শেখ হাসিনা জানান, সংকটের ব্যাপারে অং সান সু চির সাথে কথা বলেছেন তিনি। এ পরিস্থিতির জন্য সেসময় মিয়ানমার সেনাবাহিনীকে দায়ী করলেও, বর্তমানে ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে গেছেন রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা। প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের সাথে ঘটে যাওয়া বর্বর নির্যাতনের ব্যাপারে সমব্যাথী।

তবে, বিশ্ববাসীর কাছে আশ্রয়দাতা বাংলাদেশের নিরাপত্তা ঝুঁকির বিষয়টিও স্পষ্ট করেন তিনি। বলেন, শিগগিরই প্রত্যাবাসন কার্যকর না হলে আঞ্চলিক নিরাপত্তার জন্য রোহিঙ্গারা বড় হুমকি। ক্রমবর্ধমান হতাশাগ্রস্ত ও কর্মহীন রোহিঙ্গারা মৌলবাদ ও উগ্রবাদের দিকে ঝুঁকে পড়তে পারে। তারা দীর্ঘদিন অবস্থান করলে খুব সহজেই ধর্মান্তরিত হতে পারে বা জঙ্গিগোষ্ঠীগুলোতে যোগ দিতে পারে।









Leave a reply