‘কোয়ালিটি এডুকেশনের’ জন্য ২০৩০ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী

|

দেশের শিক্ষার মান ধীরে ধীরে বাড়ছে। তবে রাতারাতি কোন পরিবর্তন সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তিনি বলেন, মানসম্মত শিক্ষার জন্য সবাইকে ২০৩০ সাল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। সকালে রাজধানীর মাতুয়াইলে পাঠ্যপুস্তক ছাপাখানা পরিদর্শন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী এসময় দাবি করেন, নতুন বছরের পাঠ্যপুস্তকের জন্য অপেক্ষাকৃত ভালো, ভারি ও সাদাকাগজ ব্যবহার করা হয়েছে। জানান, ইতিমধ্যে ৩৪ কোটি বই সারাদেশে পৌঁছানো হয়েছে। বাকি বইগুলোও সময়মত পৌঁছে যাবে। ৩৫ কোটি ৪২ লক্ষ ৯০ হাজার ১৬২ টি বই এবার দেয়া হচ্ছে সারাদেশে। সরকারিভাবে পাঠ্যপুস্তক ছেপে সময়মতো শিক্ষার্থীদের কাছে পৌঁছানোর ঘটনা এখন অন্যান্য দেশের কাছে উদাহরণ। কিছু প্রকাশক বই ছাপায় কালক্ষেপন করে বা ছাপা বন্ধ রাখে অতি মুনাফার লোভে। এটা তারা সরকারকে চাপে রাখার জন্য করে। তাদের ওপর নজরদারি রাখা হয়েছে। তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা নেয়া যায় না। কারণ বই পৌঁছে দেয়ার সময় কম থাকে।

শিক্ষানীতি সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, শিক্ষানীতি বাস্তবায়ন আইন এবারের সংসদে পাস হওয়ার সম্ভাবনা আছে। এর ফলে যারা বইয়ের বোঝা চাপিয়ে দিচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া যাবে। কিছু শিক্ষকরা প্রশ্ন ফাঁসের জন্য মূল ভূমিকা পালন করে টাকার বিনিময়ে। তাদের নৈতিক মূল্যবোধ জাগ্রত করা উচিত।









Leave a reply