ভারতের আভিজাত্যে আঘাত করলো জামাল ভুঁইয়ারা

|

বাংলাদেশকে হারানো তো ভারতের কাছে ডালভাত। ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের চেয়ে ৮৩ ধাপ এগিয়ে থাকা ভারত হালকা চালে খেলে জিতে নেবে ম্যাচ এমনটাই ভাবা হচ্ছিল। কিন্তু কলকাতার যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে বাংলাদেশের বিপক্ষে হারতে পারতে শেষ মুহূর্তের গোলে ‘ড্র’ করলো ভারত! আর তাতেই কিনা ম্যাচ জয়ের উচ্ছ্বাস!

বলের দখল, ব্যক্তিগত নৈপুণ্য— কোনো কিছুতেই জামালদের পরাস্ত করতে পারেননি সুনীল ছেত্রীরা। প্রথমার্ধে এক গোলে এগিয়ে থাকা বাংলাদেশ প্রায় শেষ পর্যন্তও জয়ের সুবাস পাচ্ছিলো। নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার দুই মিনিট আগে হেডে সমতাসূচক গোলটি করেন ভারতের আদিল খান।

এমন ম্যাচে জয় হাতছাড়া হওয়ার আফসোসে পুড়বেন যেকোনো কোচই। আফসোসের শেষ নেই বাংলাদেশ দলের কোচ জেমি ডে’রও। বললেন, গোলের সুযোগ কাজে লাগাতে পারলে ফলাফল ভিন্ন হতো। আমরা তিন পয়েন্ট পেতে পারতাম। দুর্ভাগ্যজনকভাবে এক পয়েন্ট পেয়েছি। সেদিক থেকে বিবেচনা করলে আমি কিছুটা হতাশ। আর শেষ ১০-১৫ মিনিটে কিছুটা ক্লান্ত ছিলো আমার ছেলেরা। তবে ফলাফল নিয়ে আমি সন্তুষ্ট।

তবে স্বাগতিক ভারতকে ভয় ধরিয়ে দেওয়ার জন্য শিষ্যদের প্রশংসা করলেন জেমি, ‘ছেলেদের নিয়ে গর্বিত। তারা ভারতের মাটিতে অনেক দর্শকের সামনে যে ফুটবল খেলেছে; এককথায় অসাধারণ। ভারতের সবাই ভেবেছিল যে তারা ম্যাচটি জিতবে। দ্বিতীয়ার্ধে আমরা কয়েকটি সুযোগ পেয়েছি। সেগুলো কাজে লাগাতে পারলে জয়টা নিশ্চিত হয়ে যেতো। সুযোগ নষ্টের কারণে আমি খুবই হতাশ।’

শেষ মুহুর্তের গোলে পয়েন্ট হারানোর হতাশা ছুঁয়েছে লাল-সবুজ দলপতি জামাল ভুঁইয়াকে। বলেছেন, ভারত ভাবেনি এভাবে আমরা তাদের আটকে দিবো। তারা ভেবেছিলো খুব সহজে আমরা হেরে যাবো। কিন্তু আমরা তাদের চমকে দিয়েছি। তবে জয়টা আমাদের প্রাপ্য ছিলো। এর আগেও ভারতের সাথে শেষ মুহূর্তে গোল হজম করি। এবার সত্যিই দুর্ভাগ্য আমাদের।

ম্যাচে ৭টি সুযোগ তৈরি করেছে ভারতীয় শিবির। বিপরীতে দুটি গোল তো হয়েও হয়নি বাংলাদেশের। আর পেনাল্টি পেতে পারতো আরও দুটি। তারপরও ভারতীয় দলের কোচ ইগার স্তিমাকের দাবি, জয়টা নাকি তার দলেরই প্রাপ্য ছিলো! তবে, বাংলাদেশের প্রশংসা করতে ভুল করেননি। বলেন, বাংলাদেশকে অভিনন্দন, তারা দুর্দান্ত খেলেছে। বিশেষ করে ডিফেন্স লাইন। তবে জয়টা আমাদের প্রাপ্য ছিলো। ফুটবলারদের পরফরমেন্সে আমি সন্তুষ্ট নই। অসংখ্য সুযোগ মিস করেছে তারা।

‘ড্র’ করা ম্যাচেও জামালবাহিনীর পারফরমেন্স নতুন মাত্রা দিয়েছে দেশের ফুটবলে। ম্যাচজুড়ে হারের শঙ্কায় থেকে শেষ মুহূর্তের ‘ড্র’ ভারতকে স্বস্তির পরশ দিলেও তাদের ফুটবল আভিজাত্যে যে আঘাত লেগেছে তাতে কোনো সংশয় নেই।









Leave a reply