নেশার টাকার জন্য স্ত্রীকে ন্যাড়া করার ঘটনায় স্বামী-শ্বাশুড়ি কারাগারে

|

পটুয়াখালী প্রতিনিধি
নেশার টাকা না পেয়ে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী প্রিয়াংকা কর্মকারকে বেঁধে মাথার চুল কেটে দেয়ার ঘটনায় অভিযুক্ত স্বামী তাপস হাওলাদার ও শাশুড়ি লক্ষী রানীকে গ্রেফতার করেছে বাউফল থানা পুলিশ। আজ দুপুরে তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে পটুয়াখালী কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

গত মঙ্গলবার দুপুরে পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার কালাইয়া বন্দরের লঞ্চঘাট এলাকায় এ ঘটনার পর বুধবার রাতে প্রিয়াংকা বাদী হয়ে স্বামী তাপস হাওলাদার, শ্বাশুড়ি লক্ষী রানী, শ্বশুর প্রিয় লাল হাওলাদার ও ননদ বিথি রানীকে আসামি করে বাউফল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

বাউফল থানার ওসি খোন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, অপর আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

প্রসঙ্গত, গত মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে নেশাগ্রস্ত স্বামী তাপস হাওলাদার ঘরে ঢুকে টাকা চেয়ে বকা দেয়ার প্রতিবাদ করায় তাকে হাত পা বেঁধে বেধড়ক মারধর করে এক পর্যায়ে ধারালো বটি দিয়ে মাথার চুল কেটে দেয়। পরে দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে বাড়ির পাশের সেলুনের দোকান থেকে লোক নিয়ে গোটা মাথার চুল কেটে দেয় পাষন্ড স্বামী। এরপর ওই অবস্থায় তাকে ঘরবন্ধি করে রেখে পালিয়ে যায় তাপস। ঘটনার ৩০ ঘণ্টা পর বুধবার বিকেলে বাড়ির অন্য লোকজনের সহায়তায় প্রিয়াংকা সেখান থেকে পালিয়ে চলে যায় উপজেলার আদাবাড়িয়া ইউনিয়নের হাজির হাট এলাকায় বাপের বাড়িতে। বাবা স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের বিষয়টি জানালে প্রকাশ পায় এ ঘটনা।









Leave a reply