সরকারকে তথ্য দেয়া আগের চেয়ে বাড়িয়েছে ফেসবুক

|

ফেসবুকের কাছে এ বছরের প্রথম ছয় মাসে ৪৪টি অ্যাকাউন্টের তথ্য চেয়েছিল বাংলাদেশ সরকার। এর মধ্যে ২১টি একাউন্ট সংক্রান্ত তথ্য সরবরাহ করেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। তথ্যের ভিত্তিতে এসব একাউন্টের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার।

অনুরোধে সাড়া দেয়ার হার এই ছয় মাসে ৪৫ শতাংশ। সোমবার প্রকাশিত ফেসবুকের ট্রান্সপারেন্সি প্রতিবেদনে বিভিন্ন দেশের সরকারের পক্ষ থেকে পাঠানো অনুরোধ ও তাতে ফেসবুকের সাড়া দেয়ার বিষয়ে বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে সামাজিক মাধ্যমটি।

প্রতি ছয় মাস পরপর এ প্রতিবেদন প্রকাশ করে ফেসবুক। এতে কোন দেশের সরকার ফেসবুকের কাছে কী ধরনের অনুরোধ জানায়, তা তুলে ধরা হয়।

সোমবারের প্রতিবেদনে দেখা গেছে, বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে ৪৪টি অ্যাকাউন্ট সম্পর্কিত যে অনুরোধ করা হয়েছে তার মধ্যে কোনো কনটেন্ট বন্ধের অনুরোধ ছিলো না।

১০টি অ্যাকাউন্টের তথ্য সংরক্ষণের অনুরোধ করা হয়েছে আর ব্যবহারকারী বা অ্যাকাউন্ট সম্পর্কিত তথ্য চাওয়া হয়েছে ১১টির। এই ২১ একাউন্ট সম্পর্কে সরকারের অনুরোধ করা তথ্যের ১৮ দশমিক ৬০ শতাংশ তথ্য সরবরাহ করা হয়েছে।

জরুরি হিসেবে ফেসবুকের কাছে সরকারের পক্ষ থেকে ২৪টি অনুরোধে ২৩টি অ্যাকাউন্টের তথ্য চাওয়া হয়েছে। ফেসবুক এ ক্ষেত্রে ৬৭ শতাংশ তথ্য সরবরাহ করেছে।

এর আগে ২০১৬ সালের জুলাই থেকে ডিসেম্বর মাসের তথ্য গত ২৭ এপ্রিল প্রকাশ করে ফেসবুক। ওই সময়ে ৪৯টি অনুরোধ করেছিল বাংলাদেশ সরকার। তাতে ৫৭টি অ্যাকাউন্ট সম্পর্কিত তথ্য চাওয়া হয়েছিল। তবে ফেসবুক তখন ২৪ দশমিক ৪৯ শতাংশ অনুরোধে সাড়া দিয়েছিলো।









Leave a reply