তৃতীয় দিনের মতো বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি বন্ধ রয়েছে

|

বেনাপোল প্রতিনিধি:

ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে ইন্টারনেট সার্ভারে প্রিন্টার ত্রুটির কারণে তৃতীয় দিনের মতো আজও বেনাপোল পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে দু’ দেশের মধ্যে আমদানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে। আমদানি বাণিজ্য বন্ধ থাকায় স্থবির হয়ে পড়েছে বেনাপোল বন্দর এলাকা। ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে বাংলাদেশ থেকে পণ্য ভারতে প্রবেশ করতে শুরু করেছে। তবে বন্দরে লোড আনলোড প্রক্রিয়া সচল সহ এ পথে পাসপোর্ট যাত্রীর যাতায়াত স্বাভাবিক রয়েছে।

বেনাপোল স্থলবন্দরের উপ-পরিচালক (ট্রাফিক) আব্দুল জলিল জানান, আগে পেট্রাপোল বন্দরে হাতে কলমে কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা সম্পূর্ণ হতো। বর্তমানে বন্দরে অটোমেশন প্রক্রিয়া চালু হওয়ায় এই কাজ এখন অনলাইনে সম্পন্ন হয়। শনিবার ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে অনলাইনে ইন্টারনেট সার্ভারের প্রিন্টারে ত্রুটি দেখা দেয়ায় গত তিন ধরে এ বন্দর দিয়ে আমদানি রফতানি কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। তবে কাস্টমসের আন্তরিকতায় ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে বাংলাদেশ থেকে কিছু পণ্য ভারতে রফতানি হচ্ছে।

বেনাপোল কাস্টমসের সহকারী কমিশনার দ্বীপা রানী হালদার বলেন, দু’দেশের মধ্যে আমদানি বন্ধ থাকলেও আমাদের কমিশনার মহোদয়ের আন্তরিকতায় ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে রফতানি সচল করা হয়েছে এবং কিছু পচনশীল পণ্য আমদানি হচ্ছে। আমরা সার্বক্ষণিক ভারতীয় কাস্টমস কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ রাখছি। তবে তারা জানিয়েছেন, অনলাইন সিস্টেম সচল কারার জন্য কাজ চলছে। দু একদিনের মধ্যে অনলাইন সিস্টেম সচল হলে দু’দেশের মধ্যে আমদানি রফতানি পুনরায় শুরু হবে।

আমদানি বন্ধ থাকার কারণে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে আটকা পড়েছে শত শত পণ্য বাহী ট্রাক। যার অধিকাংশই বাংলাদেশের শতভাগ রফতানি মুখি গার্মেন্টস শিল্পের কাচামাল রয়েছে। আমদানি বন্ধ থাকলেও বেনাপোল বন্দরে লোড আনলোড প্রক্রিয়া স্বাভাবিক গতিতে চলছে।









Leave a reply