স্ত্রীর আত্মহত্যা, লাশ হাসপাতালে রেখে স্বামীর পলায়ন

|

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্ত্রীর লাশ হাসপাতালে রেখে পালিয়ে গেছেন স্বামী। বুধবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর জেনারেল হাসপাতালে এই ঘটনা ঘটে।

গৃহবধূর নাম দীপান্বীতা দেবনাথ (২৬)। তিনি কিশোরগঞ্জ জেলার অষ্টগ্রাম উপজেলার বাঙ্গালপাড়া গ্রামের অপূর্ব রায়ের স্ত্রী। অপূর্ব রায় তার স্ত্রী ও মাকে নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার পাইকপাড়ায় ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন।

স্থানীয়রা জানান, ৮ মাস আগে কিশোরগঞ্জ জেলার অষ্টগ্রাম উপজেলার বাঙ্গালপাড়া গ্রামের পরিতোষ দেবনাথের মেয়ে দীপান্বীতা দেবনাথের সাথে একই এলাকার মৃত অমল চন্দ্র রায়ের ছেলে অপূর্ব রায়ের প্রেম করে বিয়ে হয়। বিয়ের পর অপূর্ব তার স্ত্রীকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার পাইকপাড়ায় ভাড়াটিয়া বাসায় নিয়ে আসেন।

বিয়ের পর থেকেই পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে স্বামী ও স্ত্রীর মধ্যে দাম্পত্য কলহ চলে আসছিল। বুধবার দীপান্বীতা তার স্বামীর সাথে ঝগড়া করে নিজ কক্ষে গিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। পরে স্বামী অপূর্ব রায় দীপান্বীতাকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. শাখাওয়াত হোসেন শামীম তাকে মৃত ঘোষণা করেন। দীপান্বীতা মারা গেছে শোনার পরপরই স্ত্রীর লাশ হাসপাতালে রেখে পালিয়ে যায় অপূর্ব।

এই ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন বলেন, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি আমাকে অবহিত করেছে। গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরও বলেন, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে জানতে পেরেছি দীপান্বীতা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। এই ঘটনায় কেউ এখনো অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।









Leave a reply