এক নজরে জাতীয় পার্টির প্রার্থী মোস্তফা

|

রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা লড়ছেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে। এর আগে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন জাতীয় পার্টির এই কেন্দ্রীয় নেতা। দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কারাবাসের সময় সক্রিয় ছিলেন রাজপথে। নির্যাতনের শিকার হয়ে খেটেছেন জেলও।

ছাত্রজীবনেই রাজনীতিতে হাতে খড়ি। জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা দায়িত্ব পালন করছেন দলের মহানগর কমিটির সভাপতি হিসেবেও।

১৯৯১ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মনোনয়নপত্র বাতিল হলে বিক্ষোভে ফেটে পড়ে রংপুরবাসী। সেসময় নির্যাতনের শিকার হন মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা। গ্রেফতারও বরণ করতে হয় তাকে।

২০০৯ সালে বিপুল ভোটে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন এলাকায় বেশ জনপ্রিয় মোস্তফা। সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দলের সমর্থন না পেলেও প্রায় ৭৯ হাজার ভোট পান তিনি।

দুই সন্তানের জনক মোস্তাফিজার রহমানের জন্ম ১৯৫৯ সালে। ১৯৭৯ সালে কারমাইকেল কলেজ থেকে স্নাতক পাস করার পর বেশ কিছুদিন শিক্ষকতাও করেন তিনি। এরপর আবারও রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। রাজনীতির পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথেও জড়িত আছেন তিনি।









Leave a reply