ভারতে দাড়ি কামিয়ে ফেলতে মুসলিম পুলিশকর্মীদের নির্দেশ!

|

শৃঙ্খলা রক্ষার নামে প্রশাসনিক নিয়মের জাঁতাকলে পড়ে দাড়ির গেরোয় ফাঁসলেন নয় পুলিশকর্মী। ধর্মীয় প্রথা পালন করতে গিয়ে দেখা দিল তাঁদের চাকরি নিয়ে ঘোর সংশয়।

দাড়ি কামিয়ে ফেলতে বলে সম্প্রতি রাজস্থানের আলওয়ারের ৯ মুসলিম পুলিশ সদস্যকে নির্দেশ দেয় কর্তৃপক্ষ। পরে অবশ্য ধর্মীয় রেওয়াজকে স্বীকৃতি দিয়ে আলওয়ার পুলিশ বিভাগ ওই ৯ পুলিশকর্মীকে দাড়ি রাখার অনুমতি দেয়।

কিন্তু গত বৃহস্পতিবার আচমকা এক নির্দেশ মারফত তা খারিজ করে দেয় কর্তৃপক্ষ। নতুন নির্দেশে বলা হয়, পুলিশকর্মীদের দাড়ি রাখার নিয়ম নেই। তাতে গোটা পুলিশবাহিনীর মধ্যে বিশৃঙ্খলা দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়।

নয়া নির্দেশ হাতে পেয়ে ধর্মীয় প্রথা মেনে দাড়ি রাখবেন, না কি পেশার খাতিরে পরম্পরাকে বিদায় জানাবেন, এমনই কঠিন বিড়ম্বনায় পড়েন ইসলাম ধর্মাবলম্বী ৭ কনস্টেবল, এক হেড কনস্টেবল এবং এক সহকারী সাব-ইন্সপেক্টর।

জেলা পুলিশ সুপার প্যারিস দেশমুখ জানিয়েছেন, আগে অনুমতি দেওয়া হলেও পক্ষপাতহীন কর্তব্য পালনের উদ্দেশেই মুসলিম পুলিশকর্মীদের দাড়ি না রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়।

তবে পুলিশ প্রশাসনের নিজস্ব নিয়ম অনুযায়ী, বিভাগীয় প্রধান মনে করলে পুলিশকর্মীরা দাড়ি রাখতে পারেন। নির্দেশের গেরোয় পড়া ওই নয় কর্মীর মতামত নিতে তাঁদের সঙ্গে কথা বলেন সুপার। বোঝা যায়, দাড়ি নিকেশ করার নির্দেশ পেয়ে রীতিমতো তাঁরা মুষড়ে পড়েছেন।

পরিস্থিতি বিচার করে মুসলিম কর্মীদের স্পর্শকাতর মানসিকতাকেই গুরুত্ব দেন সুপার।

সর্বশেষ শুক্রবার আগের নির্দেশ বাতিল করে সংশ্লিষ্ট কর্মীদের আবার দাড়ি রাখার অনুমতি জারি করেন আলওয়ারের পুলিশ সুপার প্যারিস দেশমুখ। সংকট মোচন হলে স্বাভাবিকভাবেই ‘দাড়িমুখে’ স্বস্তির হাসি ফুটেছে।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস









Leave a reply