গাঁজা খাওয়া নিয়ে দ্বন্দ্ব, ভাতিজাকে হত্যার দায়ে চাচার যাবজ্জীবন

|

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি
চুয়াডাঙ্গায় ভাতিজাকে কুপিয়ে হত্যা মামলার রায়ে আলম বিশ্বাস (৫০) নামে একজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সোমবার বিকালে চুয়াডাঙ্গার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মুহা: রবিউল ইসলাম এ রায় প্রদান করেন। রায়ে দুই জনের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদেরকে খালাস দেওয়া হয়।

দণ্ডপ্রাপ্ত আলম বিশ্বাস দামুড়হুদা উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামের মৃত আব্দুল আজিজের ছেলে।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৪ সালের ৪ এপ্রিল সকালে গাঁজা খাওয়া নিয়ে বিরোধের জের ধরে দামুড়হুদা উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামের আলম বিশ্বাস ও তার ভাই আব্দুল রাজ্জাকের পরিবার মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। এক পর্যায়ে দুই পরিবার রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে আব্দুল রাজ্জাকের মেজ ছেলে শাহিন বিশ্বাস ধারলো অস্ত্রের আঘাতে খুন হন।

এ ঘটনায় নিহতের পিতা আব্দুল রাজ্জাক বাদী হয়ে তার আপন ভাই আলম বিশ্বাস, তার ছেলে ডালিম বিশ্বাস ও প্রতিবেশী আরিফ হোসেনকে আসামি করে দামুড়হুদা মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করে।

দামুড়হুদা থানার তৎকালীন উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবু জাহের ভুঁইয়া তদন্ত শেষে ৩ জন আসামিকেই অভিযুক্ত করে ২০১৫ সালের ২৪ জানুয়ারি আদালতে অভিযোগপত্র প্রেরণ করেন।

আলোচিত এ মামলার বিচার কার্য শুরু হলে বিজ্ঞ আদালত এ মামলায় ২৪ জন স্বাক্ষীর মধ্যে ১৯ জন স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্য পরীক্ষা নিরীক্ষা সম্পন্ন করেন। চুয়াডাঙ্গা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মুহা: রবিউল ইসলাম শাহীন হত্যা মামলায় তিন আসামির মধ্যে আলম বিশ্বাসকে দোষী সাব্যস্ত করে তাকে যাবজ্জীবন দেন। একই সাথে অপর দুই আসামি ডালিম বিশ্বাস ও আরিফ হোসেনের বিরুদ্ধে আনীত হত্যার অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদের দুই জনকে মামলা থেকে অব্যাহতি প্রদান করেন।









Leave a reply