বেইলি ব্রিজের পাটাতন ধস, মদন-নেত্রকোনা সড়কে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

|

কামাল হোসাইন,নেত্রকোনা
মদন-নেত্রকোনা সড়কে বয়রাহালা নদীর ওপর নির্মিত বেইলি ব্রিজের পাটাতন ধসে যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে পড়েছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে এ সড়কের যানচলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে ব্রিজটির দু-পাশের সড়কে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হচ্ছে।

বর্তমানে এ ব্রিজের দু-পাশে গাড়ি রেখে যাত্রীরা পায়ে হেঁটে পারপার হচ্ছেন। মালামাল নিয়ে দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা। মদন উপজেলা ছাড়াও খালিয়াজুরি, আটপাড়া, মোহনগঞ্জ,ইটনা উপজেলার একাংশের সাধারণ মানুষের শহরে পৌঁছানোর এটাই একমাত্র সড়ক।

জানা যায়, ব্যস্ততম এই সড়কে বয়রাহালা নদীর ওপর ব্রিজটি ১৯৯৫ সালে নির্মিত হয়। অতি পুরনো হওয়ায় বছরে ২/৩ বার পাটাতন ধসে যায়। নেত্রকোনার সড়ক ও জনপথ বিভাগের লোকজন এসে ব্রিজের ধসে যাওয়া পাটাতন নির্মাণ করেন। আবার কয়েকদিন যেতে না যেতেই ব্রিজের পাটাতন ধসে যায়। গত (২৫ নভেম্বর) সোমবার রাতে ব্রিজের পাটাতন ধসে যাওয়ার ফলে এ সড়ক দিয়ে সব ধরণের যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

এ ব্যাপারে নেত্রকোনা সড়ক ও জনপথ বিভাগের কার্য-সহকারী মোঃ মোহন উদ্দিন তালুকদার জানান, নেত্রকোনার মদন-খালিয়াজুরি সড়কে চায়না বেইলি ব্রিজটি অতি পুরোনো হওয়ায় এর টেনজাম, ডেকিং, নাট ,পাটাতন দুর্বল হয়ে গেছে। অতিরিক্ত মালামাল নিয়ে যান চলাচল করলেই এর টেনজাম ধসে যায়। আমরা বছরে ২/৩ বার এ ব্রিজটি মেরামত করে থাকি। এ ব্রিজের ওপর দিয়ে যাতায়াত ঝুঁকিপূর্ণ। তবে এর মেরামত কাজ চলছে।

মদন উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ হাবিবুর রহমান জানান, বয়রাহালা নদীর ওপর ব্রিজটি অতি পুরনো হওয়ায় প্রায়ই পাটাতন ধসে যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে যায়। এ ব্যাপারে অক্টোবর মাসে জেলা সমন্বয় সভায় গুরুত্বপূর্ণ সড়কে এই ঝুকিপূণ বেইলি ব্রিজটি ভেঙে বিশেষ ব্যবস্থায় দ্রুত একটি পাকা ব্রিজ নিমার্ণের প্রস্তাব করা হয়েছে।









Leave a reply