মিয়ানমার সেনাবাহিনীকে থাই সামরিক মহড়ায় আমন্ত্রণ!

|

রাখাইনে জাতিগত নিধনের অভিযোগ মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে। রোহিঙ্গাদের ওপর তাদের নৃশংসতায় ধিক্কার উঠেছে বিশ্বজুড়ে। অনেক দেশই মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। বন্ধ করে দিয়েছে সামরিক সহায়তা। এমন অবস্থায় নিন্দিত সেনাবাহিনীকে সামরিক মহড়ায় আমন্ত্রণ জানালো থাইল্যান্ড।

পেন্টাগন জানিয়েছে, আগামী বছরে আয়োজিত যুক্তরাষ্ট্র-থাই সামরিক মহড়ায় মিয়ানমারের সেনাদের পর্যবেক্ষক হিসেবে থাকার আহ্বান জানিয়েছে ব্যাংকক। পেন্টাগন মুখপাত্র লে. কর্নেল ক্রিস্টোফার লোগান বলেন, মানবিক সহায়তা ও বিপর্যয় পরবর্তী ত্রাণ কার্যক্রম অংশে তাদের আহ্বান করা হয়েছে।

থাই রাজকীয় বিমান বাহিনীর এক কর্মকর্তা বলেন, এটা স্পষ্ট নয় যে মিয়ানমার আমন্ত্রণ গ্রহণ করবে কিনা। তবে আমরা চাই তারা অংশগ্রহণ করুক। রোহিঙ্গা নিধনের অভিযোগ থাকার পরও কেনো মিয়ানমার সেনাবাহিনীকে এই প্রশিক্ষণে আহ্ববান করা হয়েছে এ রকম প্রশ্নে থাই অফিসার বলেন, আমরা এই ব্যাপারে আলোচনা করতে চাই না, এটা রাজনীতির ব্যাপার, আমরা সৈনিক। আমরা প্রশিক্ষণ, সামরিক সহযোগিতার ওপরে গুরুত্বারোপ করেছি।

সামরিক মহড়ায় মিয়ানমারকে আমন্ত্রণের সিদ্ধান্ত পরিবর্তনে থাইল্যান্ডের ওপর চাপ প্রয়োগ করা হবে কিনা, এমন প্রশ্নের জবাব দেননি পেন্টাগন মুখপাত্র। তবে মার্কিন সামরিক বিশ্লেষক জ্যাখারি আবুজা বলেন, প্রশিক্ষণে মিয়ানমারকে আমন্ত্রণ জানানো একটি মোটেই ঠিক হয়নি, এটি ভুল বার্তা দিবে।

আগামী ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠেয় এই সামরিক প্রশিক্ষণে ২৯টি দেশ অংশগ্রহণ করবে। তবে বড় অংশীদার হিসেবে ৩৬০০ সেনা থাকবে যুক্তরাষ্ট্রের।









Leave a reply