বিহার থেকে খসে পড়ছে ফলক

|

নিজস্ব প্রতিবেদক, নওগাঁ:

বিশ্ব ঐতিহ্য পাহাড়পুর বৌদ্ধ বিহার সংস্কারের মাত্র ৩ বছরের মাথায় খসে পড়ছে পোড়া মাটির ফলক। ভেঙ্গে গেছে বিহারের মূল চূড়ায় (মন্দিরে) উঠার কাঠের সিঁড়ি। এছাড়া প্রবেশদ্বারে তৈরি কাঠের সিঁড়িও ভেঙ্গে গেছে।

জানা গেছে, ২০১৬ সালে সাউথ এশিয়ান ট্যুরিজম ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্টের আওতায় এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের অর্থায়নে দুই ধাপে উন্নয়ন কাজ করা হয়। কাজটি করেছেন ঢাকার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এম/এস ঢালি কনস্ট্রাকশন লিমিটেড। কিন্তু সংস্কারের মাত্র তিন বছরের মাথায় নষ্ট হতে শুরু হয়েছে সংস্কারের কাজ।

দর্শনার্থীরা জানান, সংস্কারের সময় বিহারের গায়ে লাগানো পোড়া মাটির ফলক খসে পড়ছে। কাঠের ব্রিজ ও কাঠের সিঁড়িও ভেঙ্গে গেছে। কাঠের ব্রিজের পাটাতনের কয়েকটি কাঠ ভেঙ্গে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে।

জয়পুরহাট থেকে আগত মাহমুদুল, নাসরিন ও মনিরুলসহ বেশ কয়েক জন দর্শনার্থী জানান, প্রধান মন্দিরে উঠার একমাত্র সিঁড়ি ভেঙ্গে যাওয়ায় বাঁশের বেড়া দিয়ে চলাচলের পথ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ফলে দর্শনার্থীরা মন্দিরের চূড়ায় উঠতে পারছে না। অনেকে ঝুঁকি নিয়ে মন্দিরের উপরে উঠছেন।

দর্শনার্থীদের অভিযোগ, সংস্কারের সময় নিম্নমানের কাজ হওয়ায় কয়েক বছরের মধ্যে কাঠের ব্রিজ ও সিড়ি ভেঙ্গে গেছে।

পাহাড়পুর জাদুঘরের কাস্টোডিয়ান আবু সাইদ জানান, বিহারের অবকাঠামো নষ্ট হওয়ার বিষয়টি উপর মহলকে জানানো হয়েছে। কর্মকর্তাদের নির্দেশনায় সাইনবোর্ড দিয়ে সাধারণ দর্শনার্থীদেরকে সিড়ি ব্যবহার বন্ধ করা হয়েছে।

প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী খন্দকার জাহিদুল করিম ও উপ সহকারী প্রকৌশলী খলিলুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন বলে জানান কাস্টোডিয়ান আবু সাইদ।









Leave a reply