দয়াগঞ্জে শিশু হত্যায় অভিযুক্ত রাজীব গ্রেফতার

|

রাজধানীর দয়াগঞ্জে ছিনতাইকারীর কবলে পড়ে  ৬ মাসের শিশু আরাফাতের মৃত্যুর জন্য অভিযুক্ত আসামি রাজীবকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ডেমরা জোনের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার ইফতেখায়রুল ইসলাম তার ব্যক্তিগত ফেসবুকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ‘প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে আমরা গত রাত ১টায় এই ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত পাষণ্ড রাজীবকে ওয়ারী বিভাগের দয়াগঞ্জ এলাকা থেকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হই! রাজীব একজন মাদকসেবী। আশেপাশের বস্তিতেই তার বসবাস। শুধুমাত্র একটি ব্যাগের জন্য ৫ মাস বয়সী আরাফাতের জীবন নিয়ে নেয় এই পাষণ্ড।’

‘আসামি রাজীব প্রাথমিক জবানবন্দীতে পুলিশের কাছে তার অপরাধের কথা স্বীকার করে নেয় এবং আজ ২৪ ডিসেম্বর বিজ্ঞ আদালতের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করে। ভিকটিমের বাবার ছোট্ট বর্ণনা, সিসিটিভি ফুটেজ থেকে প্রাপ্ত অংশ এবং সর্বোপরি একজন চাক্ষুষ সাক্ষী আমাদের এই অর্জনকে বেগবান করতে সহায়তা করে। কোথায় যাইনি আমরা শৌচাগার, ময়লার ড্রেন থেকে ধরে বিভিন্ন এলাকা ঘেঁষে আমরা ঘুরেছি, হেঁটেছি। এটা আমাদের দায় হলেও আমরা এই কাজে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলাম ছোট্ট ফেরেশতা আরাফাতের আত্মার প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনে!!’

উল্লেখ্য, গত ১৮ ডিসেম্বর ভোরে শিশুটির বাবা শাহ আলম ও মা আকলিমা বেগম দু’বছর বয়সী আরেক সন্তান আল-আমিনের চিকিৎসার জন্য শরীয়তপুর থেকে লঞ্চে ঢাকায় আসেন। শাহ আলম অসুস্থ ছেলেকে নিয়ে এক রিকশায় এবং অন্য রিক্সায় ছিলেন স্ত্রী ও ৬ মাসের শিশুটি। রিকশাটি দয়াগঞ্জের ঢালে পৌঁছালে তিন-চারজন ছিনতাইকারী আকলিমার হাতব্যাগ ধরে টান দেয়। আকলিমার কোলে থাকা ছয় মাসের শিশু আরাফাত ছিটকে রাস্তায় পড়ে যায়। পরে গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত শিশুটিকে হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

যমুনা অনলাইন: এএস/টিএফ









Leave a reply