প্রিয়ঙ্কা গান্ধিকে যোগী অদিত্যনাথের হুঁশিয়ারি

|

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (CAA) নিয়ে উত্তরপ্রদেশের যোগী আদিত্যনাথ সরকারকে তীব্র আক্রমণ করেছিলেন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়ঙ্কা গান্ধি ভঢরা। এবার তার কড়া উত্তর দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। হিন্দিতে টুইট করে শাস্তির হুঁশিয়ারি দিলেন যোগী আদিত্যনাথ।

সেই টুইটে তিনি লেখেন, ‘‘একজন সন্ন্যাসীর জনকল্যাণের ক্রমান্বয়ে প্রচেষ্টায় কেউ বাধা দিলে তাঁকে শাস্তি দেওয়া হবে। যাঁরা উত্তরাধিকার সূত্রে রাজনীতি ও তোষণের রাজনীতি অনুশীলন করেন তাঁদের পক্ষে সেবার ধারণাকে বোঝা কঠিন।” সোমবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে প্রিয়ঙ্কা গান্ধি ভঢরা আক্রমণ করেন যোগী আদিত্যনাথ সরকারকে।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদীদের উপরে পুলিশি আক্রমণ, তাঁদের গ্রেফতারি এবং প্রতিবাদের সময় নষ্ট হওয়া জনগণের সম্পত্তির ক্ষতিপূরণ হিসেবে তাঁদের সম্পত্তির নিলাম করার ঘোষণা— এই সব কিছুর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেন কংগ্রেস নেত্রী। যোগী বলেছিলেন, যাঁরা জনগণের সম্পত্তির ধ্বংসের জন্য দায়ী তাঁদের উপরে ‘‘বদলা” নেওয়া হবে।

প্রিয়ঙ্কা মুখ্যমন্ত্রীর পরনের গেরুয়া পোশাকের প্রসঙ্গে জানিয়েছিলেন, গেরুয়া রং দেশের ‘‘ধর্মীয় ও আধ্যাত্মিক ঐতিহ্যের” প্রতীক। তিনি বলেন, ‘‘বদলা, প্রতিহিংসা ও ক্রোধের কোনও স্থান নেই দেশের আত্মায়।”

তিনি জানান, ‘‘এটা ভগবান কৃষ্ণের দেশ, যিনি করুণার প্রতীক। ভগবান রামও করুণার প্রতীক। যখন শ্রীকৃষ্ণ মহাভারতের যুদ্ধের সময় ধর্মোপদেশ দিয়েছিলেন, তিনি বদলা বা ক্রোধের কথা বলেননি সেই মহান যোদ্ধাকে। তিনি কেবল সহানুভূতি ও সত্যের অনুভূতির কথা জানিয়েছিলেন।”

প্রিয়ঙ্কার এই বক্তব্যের প্রথম প্রতিবাদ করেন রাজ্যের উপমুখ্যমন্ত্রী দীনেশ শর্মা। তিনি কংগ্রেস নেত্রীকে আক্রমণ করে বলেন, ‘‘যোগীজি একটি ধর্মকে আত্মস্থ করেছেন। হিন্দু ধর্ম কখনও কারও ক্ষতি করার কথা বলে না। হিন্দু ধর্ম অন্য ধর্মকে অপমান করার কথা বলে না। হিন্দু ধর্ম বিরাট। এবং আপনি বলছেন, এমন এক মানুষ (যিনি এই ধর্মকে আত্মস্থ করেছেন) এই ধরনের কাজ করেছেন।”

তিনি দাবি করেন, যাঁরা হিংসা ছড়িয়েছে প্রিয়ঙ্কা গান্ধি বঢরা তাঁদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন। পাশাপাশি যোগীর ‘‘বদলা” মন্তব্যের ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে তিনি বলেন, মুখ্যমন্ত্রী বলতে চেয়েছেন যে গুন্ডারা জনসম্পত্তি নষ্ট করেছেন তাঁদের এর ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।









Leave a reply