রাজধানীতে ঢাবি শিক্ষার্থী ধর্ষণের ঘটনায় পৃথক ২ মামলা

|

রাজধানীর কুর্মিটোলাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী ধর্ষণের ঘটনায় শাহবাগ ও ক্যান্টনমেন্ট থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আজ সোমবার এ মামলা দায়ের করা হয় বলে জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. গোলাম রাব্বানী।

ক্যান্টনমেন্ট থানায় ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর বাবা বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেন এবং শাহবাগ থানায় বিশ্ববিদ্যালয় বাদি হয়ে মামলা দায়ের করে।

ধর্ষণের শিকার ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে। তার চিকিৎসায় মেডিকেল বোর্ড গঠন করেছে ঢাকা মেডিকেল কর্তৃপক্ষ।

এঘটনায় ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান জানিয়েছেন, জড়িতদের চিহ্নিত করে দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে। তিনি বলেন, ভুক্তভোগি শিক্ষার্থীকে সার্বিক সহযোগিতা করতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তার পাশে আছে।

ডিএমসি পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম নাসির উদ্দিন বলেন, ভুক্তভোগির শরীরে কিছু আঘাতের চিহ্ন আছে একই সাথে সে মানসিকভাবে বিপর্যয়ে আছে। তার সুচিকিৎসায় সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে বলেও জানান, ঢাকা মেডিকেলের পরিচালক।

উল্লেখ্য, রোববার সন্ধ্যায় রাজধানীর কুর্মিটোলায় ধর্ষণের শিকার হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের এক ছাত্রী। বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস থেকে নামার পর অজ্ঞাত ব্যক্তি তার মুখ চেপে তাকে পার্শ্ববর্তী একটি নির্জন স্থানে নিয়ে অজ্ঞান করে ধর্ষণ ও শারীরিক নির্যাতন করে। রাত ১০টার দিকে ওই ছাত্রীর জ্ঞান ফিরলে তিনি নিজেকে একা নির্জন স্থানে আবিষ্কার করেন। পরে সেখান থেকে সিএনজি নিয়ে এক বান্ধবীর বাসায় যান। তারপর রোববার রাত ১২টার দিকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করান তার সহপাঠীরা।









Leave a reply