‘রুটি সংকটে’ ইমরান খান সরকার

|

রুটি নিয়ে সংকটে পড়েছে পাকিস্তানের ইমরান খান সরকার। দেশটিতে হঠাৎ করেই আটার দাম বেড়ে গেছে কয়েকগুণ। প্রতি কেজি আটা বিক্রি হচ্ছে ৬২ রুপিতে। গেলো ডিসেম্বরের তুলনায় প্রায় দ্বিগুণ দামে বিক্রি হচ্ছে পণ্যটি। তাই রুটি খাওয়া নিয়ে চিন্তায় পড়েছে পাকিস্তানের নাগরিকরা। স্বভাবতই দেশটির প্রধান খাদ্য পণ্যটির মূল্য নিয়ন্ত্রণ করতে না পারায় সরকারের বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে জনগণ। এমন পরিস্থিতিতে চিন্তায় পড়েছে ইমরান খান সরকার।

তাই গমের দাম কমাতে নানা ধরনের পদক্ষেপ নেয়া শুরু করেছে পাক সরকার। তবুও পণ্যটির দাম কমাতে ব্যর্থ হচ্ছে তারা। দেশটির গণমাধ্যম জিওনিউজ জানিয়েছে, এক সপ্তাহেই দেশটিতে আটার দাম কেজি প্রতি বেড়েছে পাঁচ রুপি। করাচি, লাহোর, ইসলামাবাদ প্রায় সবখানেই ৬২ রুপির নিচে মিলছে না আটা। কোথাও কোথাও প্রতি কেজি আটার মূল্য ৭০ রুপি ছাড়িয়ে। এক মাস আগেও করাচিতে ১ কেজি আটা কিনতে লাগত ৪৫ রুপি।

বিক্রেতাদের বক্তব্য, গমের দাম হঠাৎই বেড়ে যাওয়ায় আটার দামও বেড়েছে। দাম কবে কমবে সে ব্যাপারে কোনো স্পষ্ট ধারণা নেই তাদের। কিন্তু ব্যবসায়ীদের এমন বক্তব্য মিথ্যা বলে জানিয়েছে ইমরান খান সরকার। পাক সরকারের খাদ্য বিভাগ বলছে, গমের দাম ১ রুপিও বাড়েনি। সরকারি গুদামে চার মিলিয়ন টন গম মজুত রয়েছে। অসুাদু ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে গমের দাম বাড়ার ভুয়া খবর ছড়িয়েছে।

প্রাদেশিক সরকারগুলোকে খাদ্যদ্রব্যের মূল্যের লাগাম টানার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। কারা এ মূল্যবৃদ্ধির কারসাজিতে জড়িত তা চিহ্নিত করতে নির্দেশনা দেন। যদিও এমন নির্দেশনার মাঝেই দেশটির রেস্তোরাঁ ও ধাবা মালিকরা সোমবার থেকে আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।









Leave a reply