চীনে থাকা বাংলাদেশিদের ফিরতে ১৪ দিন অপেক্ষা করতে হবে

|

করোনাভাইরাস আতঙ্কে চীনসহ গোটা বিশ্ব। আতঙ্ক গ্রাস করেছে বাংলাদেশকেও। তার সাথে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠাও আছে, কারণ করোনাভাইরাসের কেন্দ্রস্থল চীনের যে উহান শহর সেখানেই ৩০০ থেকে ৪০০ বাংলাদেশি শিক্ষার্থী থাকেন। গোটা শহরের মানুষের মতো তারাও গৃহবন্দি জীবনযাপন করছেন। ভাইরাস আতঙ্ক তো আছেই পাশাপাশি ফুরিয়ে যাচ্ছে তাদের খাদ্য। দেশে স্বজনদের কাছে ফিরে আসতে উদগ্রীব তারা। কিন্তু সহসাই তাদের ফেরা হচ্ছে না। আরও ১৪ দিন অপেক্ষা করতে হবে। কারণ করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধের লক্ষ্যে ১৪ দিন পর্যন্ত উহানে কাউকে প্রবেশ কিংবা চীনের পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশটিতে যেতে দেবে না স্থানীয় কর্তৃপক্ষ।

সোমবার দুপুরে বেইজিংয়ে বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের ব্রিফিংয়ে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা এ তথ্য জানান। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে উদ্ধৃত করে বেইজিং থেকে ঢাকায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো এক বার্তায় এ কথা জানানো হয়।

এদিকে, চীনে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্কের মধ্যে সে দেশে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

জানা গেছে, চীন থেকে দেশে ফিরতে আগ্রহীদের তালিকা করতে একটি প্রাথমিক নির্দেশনা জারি করা হবে। তারপর সে ভিত্তিতে চীনের সাথে সমন্বয় করে সেখানকার বাস্তবতার নিরিখে তাদের দ্রুততম সময়ের মধ্যে ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা নেয়া হবে।

করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার প্রেক্ষাপটে যেকোনো জরুরি প্রয়োজনে যোগাযোগের জন্য বেইজিংয়ে বাংলাদেশ দূতাবাস একটি হটলাইন চালু করেছে। শিক্ষার্থী ও গবেষকরা সপ্তাহের সাত দিন হটলাইনের +৮৬ ১৭৮-০১১১-৬০০৫ নম্বরে ফোন করে চব্বিশ ঘণ্টা সহায়তা নিতে পারবেন।









Leave a reply