করোনাভাইরাস: খাদ্যনালির মাধ্যমেও সংক্রমণ ঘটতে পারে

|

চীনজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। সর্বশেষ প্রায় ৫০০ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ‘আলজাজিরা’।

মঙ্গলবার পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ছিল ৪২৫ জন। একদিনের ব্যবধানে আরও ৬৫ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।
করোনাভাইরাস ২০১৯-এনসিওভির সংক্রমণ খাদ্যনালির মাধ্যমেও ঘটতে পারে বলে জানিয়েছে চীনের সরকারি বার্তা সংস্থা সিনহুয়া। বার্তা সংস্থা সিনহুয়া জানায়, রোগীর মল, পায়ু থেকে নেয়া নমুনায় এ ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে।

খাদ্যনালির মাধ্যমে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার বিষয়টি বের করেছেন উহান বিশ্ববিদ্যালয়ের রেনমিন হাসপাতাল এবং চীনের সায়েন্স একাডেমির উহান ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজি।

এই দুই সংস্থার চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা দেখতে পেয়েছেন, এ ভাইরাসে আক্রান্ত কোনো কোনো রোগীর প্রাথমিক পর্যায়ে জ্বর দেখা দেয়নি। বরং তাদের দেখা দিয়েছিল ডায়রিয়া বা পাতলা পায়খানা।

আর এতেই বোঝা যাচ্ছে, হাঁচি-কাশি নয়; বরং এটি হয়তো মুখপথে খাদ্যনালির মাধ্যমে ২০১৯-এনসিওভি শিকার হয়েছেন এসব রোগী। এমন রোগীর প্রথমে জ্বরও দেখা দেয়নি। তাই ভাইরাসের উপস্থিতি খুঁজে বের করার জন্য শ্বাসতন্ত্র থেকে নমুনা নিয়েছেন। নিউমোনিয়ার আক্রান্ত রোগীর

শ্বাসতন্ত্র থেকে এভাবে নতুন সংগ্রহ করা হয়েছে। কিন্তু পাতলা পায়খানা বা ডায়রিয়া থাকলেও হাঁচি-কাশি বা জ্বরের উপসর্গ না থাকলে সেসব রোগীকে এড়িয়ে গেছেন বিজ্ঞানীরা।

তাদের শরীরে করোনাভাইরাস আছে কিনা তা পরীক্ষা করে দেখার প্রয়োজন অনুভব করেননি তারা। সংশ্লিষ্ট ভাইরাসের কারণে ১০ থেকে ২০ শতাংশ রোগীর প্রথমে ডায়রিয়া হয়েছে। আমেরিকায় যে প্রথম আক্রান্ত রোগীরও ডায়রিয়ার শিকার হয়েছিলেন।

এর আগে করোনাভাইরাস ২০১৯-এনসিওভিকে নোভেল বা অভূতপূর্ব হিসেবে ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

তথ্যসূত্র: পার্সটুডে









Leave a reply