বিদায় দুই জায়ান্ট বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদের

|

আসর থেকে বিদায় দুই জায়ান্ট বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদের। অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের কাছে ১-০ গোলে হেরেছে বার্সেলোনা। আর ঘরের মাঠে রিয়াল সোসিয়াদাদের কাছে ৪-৩ গোলে হেরে শেষ আট থেকে বিদায় নিশ্চিত হয়েছে রিয়াল মাদ্রিদের।

সব ধরণের প্রতিযোগিতায় টানা ২২ ম্যাচ অপরাজিত থাকার কীর্তি জিনেদিন জিদান শিষ্যদের। কিন্তু ঘরের মাঠে শুরুতেই দু:স্বপ্ন উপহার দেয় রিয়াল সোসিয়াদাদ। ম্যাচের ২২ মিনিটে মার্টিন ওডেগার্ডের গোলে পিছিয়ে পড়ে স্বাগতিকরা

বিরতির পর আরো ভয়ঙ্কর রুপে দেখা দেয় রিয়াল সোসিয়াদাদ। যে রক্ষণে ২২ ম্যাচ অপরাজিত থাকার কীর্তি গ্যালাক্টিকোদের, সেই রক্ষণকে নিয়ে রীতিমতো ছেলেখেলা করেছে সোসিয়াদাদ। যেখানে ৫৪ মিনিটে দারুণ এক ভলিতে ব্যবধান ২-০ করেন আলেকজান্ডার ইসাক। মিনিট দুয়েক পর আবারো স্কোরশিটে নাম তোলেন এই সুইডিশ ফরোয়ার্ড। ৫৯ মিনিটে মার্সেলোর গোলে ব্যবধান কমায় রিয়াল মাদ্রিদ। তবে মিনিট দশেক পর মেরিনোর গোলে ৪-০ গোলের লিড সফরকারীদের।

শেষ দিকে রদ্রিগো ও নাচোর গোলে ম্যাচে ফেরার চেষ্টা রিয়াল মাদ্রিদের। শেষ পর্যন্ত ৪-৩ গোলের হারে আসর থেকে বিদায় নিশ্চিত হয় ক্লাবটির। তাতে কোপা দেল রের শিরোপা জয়ের অপেক্ষা আরো দীর্ঘায়িত হলো টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ ১৯টি শিরোপা জয়ী রিয়াল মাদ্রিদের।

অপর ম্যাচে সার্জিও বুসকেটসের শেষ মুহুর্তের আত্মঘাতী গোলে হতাশার রাত গেছে বার্সেলোনারও। অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের কাছে ১-০ গোলে হেরেছে ক্লাবটি

মেসি-আবিদাল প্রকাশ্য দ্বন্দ্বের পর প্রথম ম্যাচেই পরাজয়ের মুখ দেখলো কাতালান ক্লাবটি। এরআগে বিলবাওয়ের মাঠে লিগ ম্যাচে হেরেছিলো কিকে সেতিয়েন শিষ্যরা।

যদিও পুরো ম্যাচে একক আধিপত্য ছিলো কাতালান ক্লাবটির।গোলপোস্টে মেসি-ফাতিরা নেন ১১টি শট। যার চারটিই ছিলো লক্ষ্যে…

বিপরীতে গোলপোস্টে মাত্র আটটি শট নিয়ে জয়ের দেখা পেলো বিলবাও। এ নিয়ে মৌসুমে দু’টি শিরোপা হাতছাড়া হলো স্প্যানিশ জায়ান্টদের।









Leave a reply