নতুন বছরে ক্যালিফোর্নিয়ায় বৈধতা পেল গাঁজা

|

উপরের ছবিটি খেয়াল করুন। এটি যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার একটি ভবনের গাঁজা বিজ্ঞাপন সম্বলিত বিল বোর্ড, যাতে লেখা আছে গাঁজা ওপর নিষেধাজ্ঞা বাতিল করা হয়েছে এবং ভোক্তাদের কাছে তা পৌঁছে দেওয়া হবে।

হ্যাঁ, ১৯৯৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া প্রথম রাজ্য হিসেবে চিকিৎসার উদ্দেশ্যে গাঁজার অনুমোদনের পর এবার যুক্তরাষ্ট্রের ৬ষ্ঠ অঙ্গ রাজ্য হিসেবে বিনোদনের জন্য গাঁজা সেবনের উপর আরোপকৃত নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে।

সোমবার রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১ জানুয়ারি থেকে ক্যালিফোর্নিয়ায় প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তিরা (সর্বনিম্ন ২১ বছর) বিনোদনের উদ্দেশ্যে সর্বোচ্চ এক আউন্স (২৮ গ্রাম) পর্যন্ত গাঁজা কিনতে পারবেন। ক্যালিফোর্নিয়াসহ এ নিয়ে দেশটির ছয়টি অঙ্গরাজ্যে বিনোদনের জন্য গাঁজা সেবন বৈধতা পেল। অপর পাঁচটি রাজ্য হলো—কলোরাডো, ওয়াশিংটন, ওরেগন, আলাস্কা ও নেভাদা। তবে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার এখনও হেরোইন ও কোকেনের মতো গাঁজাকে নিষিদ্ধ বস্তু হিসেবেই মনে করে।

১৪ মাস আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সময় ক্যালিফোর্নিয়ার জনগণ গাঁজার বৈধতা সম্বলিত প্রস্তাব-৬৪ এর পক্ষে ভোট দিয়েছিলেন। এরপর এতদিন ধরে গাঁজা বিক্রি সংক্রান্ত নিয়মকানুন ও কর কাঠামো তৈরির কাজ চলে। প্রাথমিকভাবে সীমিত সংখ্যক প্রতিষ্ঠান বিক্রি করার বৈধতা পেলেও উৎপাদক এবং ভোক্তার সমন্বয়হীনতার জন্য প্রচুর কালোবাজারি হতো। তবে এখন নিয়ন্ত্রিত বাজারের ফলে ধারণা করা হচ্ছে ২০২১ সাল নাগাদ ১০০ কোটি মার্কিন ডলার পরিমাণ রাজস্ব আয় করবে অঙ্গরাজ্যটি।

তবে এর বিরোধীরা বলছেন, এর ফলে গাঁজায় নেশাগ্রস্ত অবস্থায় বেপরোয়া গাড়ি চালানো ও তরুণদের মাদক সেবন বেড়ে যাবে।

তবে, বিনোদনের জন্য বৈধ হলেও জনসমাগমস্থলে গাঁজা সেবন নিষিদ্ধ। এ ছাড়া কোনো স্কুলের ৩০০ মিটারের মধ্যে অথবা গাড়ি চালনার সময় গাঁজা সেবন করা যাবে না।

 

যমুনা অনলাইন: এএস









Leave a reply