শ্রেণিকক্ষে ঢুকে শিক্ষককে মারধর করলো আরেক শিক্ষক

|

বগুড়া ব্যুরো
বগুড়ায় শ্রেণিকক্ষে ঢুকে এক শিক্ষককে পিটিয়ে আহত করেছেন আরেক শিক্ষক। মঙ্গলবার দুপুরে শহরের গোদারপাড়া এলাকায় জাহিদুর রহমান মহিলা কলেজে এই ঘটনা ঘটে। ঘটনার প্রতিবাদে কলেজের শিক্ষার্থীরা কিছু সময় বগুড়া-নওগাঁ আঞ্চলিক সড়ক অবরোধ করলেও স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর ও পুলিশের আশ্বাসে তারা শ্রেণিকক্ষে ফিরে যায়।

ঘটনার সময় শ্রেণিকক্ষে থাকা শিক্ষার্থীরা জানান, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে কলেজের ইংরেজি বিষয়ের খণ্ডকালীন শিক্ষক আলমগীর কবির পলাশ ক্লাস নিচ্ছিলেন। এসময় আচমকা কলেজের নিয়োগপ্রাপ্ত ইংরেজি শিক্ষক মিজানুর রহমান ৫/৬ জন যুবককে সঙ্গে নিয়ে শ্রেণিকক্ষে ঢুকে পড়েন। এরপর অশ্রাব্য ভাষায় পলাশকে গালাগালের একপর্যায়ে তাকে কিল-ঘুষি ও লাথি মারতে থাকেন মিজান। পরে কলেজের অন্য শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা এগিয়ে এলে মিজান ও তার সহযোগীরা কলেজ থেকে বেরিয়ে যান।

কলেজের অধ্যক্ষ মাহবুব আলম জানান, গত নভেম্বর থেকে ইংরেজি বিষয়ের শিক্ষক মিজানুর রহমান কলেজে আসেন না। অনুপস্থিতির কোনো কারণও কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেন নি তিনি। তাই শিক্ষার্থীদের পাঠদান বিবেচনায় তারা সম্প্রতি আলমগীর কবির পলাশকে খণ্ডকালীন শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেন। এ কারণেই শ্রেণিকক্ষে হামলার ঘটনা ঘটলো কী না-তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

ঘটনার ঘণ্টাখানেক পর ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা কলেজের সামনে বগুড়া-নওগাঁ আঞ্চলিক সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করে। পরে স্থানীয় কাউন্সিলর আমিনুল ইসলাম ও পুলিশের আশ্বাসে তারা শ্রেণিকক্ষে ফিরে যান।

সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এস.এম. বদিউজ্জামান যমুনা নিউজকে জানান, শিক্ষার্থীরা বিক্ষুব্ধ হলেও পরে পরিস্থিতি শান্ত হয়েছে। কলেজ কর্তৃপক্ষ লিখিত অভিযোগ দেয়ার পরপরই আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া শুরু করা হবে। #









Leave a reply