ডিজিটাল চিকিৎসা সেবায় যুগান্তকারী পদক্ষেপ নিল প্লেক্সাসডি

|

দেশের চিকিৎসা খাতে যুগান্তকারী পরিবর্তন আনতে দীর্ঘদিনের প্রচেষ্টাকে অনেকাংশে সফল ও সহজ করে তুলেছে নানা ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম। এগুলোর মাধ্যমে রোগীরা খুব সহজেই ডাক্তারের এ্যাপয়েন্টমেন্ট সহ রোগের যাবতীয় দিক-নির্দেশনা পেতে পারেন খুব সহজেই।

চিকিৎসা সংক্রান্ত এই ডিজিটাল সেবাকে রোগীদের কাছে আরও সহজ ও সাবলীল করে তুলতে তেমনই একটি প্ল্যাটফর্ম ‘প্লেক্সাসডি’।

প্লেক্সাসডি রোগীকে শুধুমাত্র রোগ সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্যই দিবে এমনটি নয় বরং তার ওষুধ খাওয়ার সময়, সুবিধামতো সময়ে চিকিৎসকের সাক্ষাতের সময় নির্ধারণ করার সুযোগ ও চিকিৎসকের সাথে পরবর্তী সাক্ষাতের রিমাইন্ডার দেয়া সহ রোগীর রোগ সংক্রান্ত পূর্ববর্তী সকল ইতিহাস সংরক্ষণ করবে।

ফলে কোন রোগী তার প্রতিদিনকার ওষুধ খাওয়ার সময় ভুলে গেলে অথবা ডাক্তারের সাথে পরবর্তী সাক্ষাত করার সময় ভুলে গেলেও যথাসময়ে তা রোগীকে মনে করিয়ে দেবে প্লেক্সাসডি।

এসব সুবিধা ছাড়াও প্লেক্সাসডিতে রোগীরা আরও কিছু সুবিধা পাবেন যা হলো- স্মার্ট এ্যাপয়েন্টমেন্ট, ই-প্রেস্ক্রিপশন, ডিজিটাল রশিদ, অনলাইন রিপোর্ট ও ফলো-আপ। আর এসব সব কিছুই সংরক্ষণ করা হবে রোগীর নামে তৈরি করা অনলাইন স্টোরেজে।

প্লেক্সাসডির ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজিম মাহমুদ বলেন, ‘২০১৫ সালে স্বাস্থ্য অবস্থার পর্যাপ্ত সঠিক তথ্যের অভাবে আমার মায়ের কিডনি ড্যামেজ হয়ে যায়। তখন থেকেই ভাবতে থাকি কীভাবে স্বাস্থ্যসেবার এই সমস্যা দূর করা যেতে পারে। সেই চিন্তা থেকেই এই প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা, যাতে রোগীদের ভোগান্তি ও অসুবিধা দূর করা যায়।’

তিনি আরও বলেন, প্লেক্সাসডি এমন একটি অনলাইন প্ল্যাটফর্ম যেখানে একজন রোগী বহুমুখী স্বাস্থ্য সেবা পেতে পারেন।

প্লেক্সাসডি যেভাবে কাজ করে:-

একজন রোগী প্লেক্সাসডিতে এ্যাকাউন্ট তৈরি করার সাথে সাথেই তার যাবতীয় তথ্য অনলাইন স্টোরেজে সংরক্ষিত হয়ে যাবে। ফলে একজন ডাক্তার কম সময়েই তার রোগের পূর্ববর্তী অবস্থা ও কি কি ওষুধ রোগী গ্রহণ করেছেন তা দেখতে পাবেন।

একইসাথে প্লেক্সাসডি’র মাধ্যমে রোগী তার পছন্দমতো চিকিৎসকের সাথে সাক্ষাত করতে পারবেন। এ্যাপয়েন্টমেন্টর ক্ষেত্রে সফটওয়্যারের অ্যালগরিদমের সাহায্যে চিকিৎসকের
সাথে সাক্ষাতের একটি সময়ও ‍রোগী নির্ধারণ করে নিতে পারবেন।

প্লেক্সাসডি’র ই-প্রেসক্রিপশনের মাধ্যমে রোগী তার পূর্ববর্তী ও চলমান সকল প্রেসক্রিপশন তার অনলাইস স্টোরেজে আপলোড করে রাখতে পারবেন। ফলে সফটওয়্যারটি রোগীর পূর্বের মেডিকেল ইতিহাস বিবেচনা করে ক্রস-চেক করে সে অনুযায়ী যে ওষুধ তার প্রেসক্রিপশনে দেয়া হয়েছে তা ঠিকঠাক আছে কি না সেটি জানিয়ে দেবে। সেইসাথে একজন চিকিৎসক গত এক বছর ধরে যে সকল ওষুধ তার রোগীদের দিয়ে থাকেন এর মধ্যে থেকে রোগীকে ওষুধ সুপারিশ করবে।

প্লেক্সাসডির ডিজিটাল রশিদের মাধ্যমে রোগী তার ওষুধ ও চিকিৎসা বিলের হিসেবও খুব সহজেই রাখতে পারবেন। যেখানে মাসিক, দ্বিমাসিক, ত্রৈমাসিক এবং বাৎসরিক হিসাব পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে রাখা যাবে।

এর অনলাইন রিপোর্ট সেবার মাধ্যমে কোন হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়ার পর তার যাবতীয় পরীক্ষার রিপোর্ট রোগীর কাছে পৌছে যাবে ফলে হাসপাতাল থেকে রিপোর্ট সংগ্রহের ঝামেলা পোহাতে হবেনা।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১৫ এপ্রিলে প্লেক্সাসডি অ্যাপ অফিসিয়ালভাবে চালু করা হয়। এখন পর্যন্ত ২৫ টি চেম্বার, ২০০ জন চিকিৎসক এবং ৫৬০০ চিকিৎসা সেবা প্রার্থী নিয়ে কাজ করছে প্লেক্সাসডি।

প্লেক্সাসডির মাধ্যমে স্বাস্থ্যসেবা পেতে হলে ভিজিট করতে হবে তাদের ওয়েবসাইট (http://www.plexusd.com) এই ঠিকানায় অথবা আপনার গুগল প্লে-স্টোর থেকেও নামিয়ে নিতে পারেন প্লেক্সাসডি এ্যাপ।









Leave a reply