ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা, ধরা পড়েনি আসামী

|

বরিশালের বাকেরগঞ্জের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী সনিয়া। নতুন বছরের প্রথম দিনে নতুন বই আনতে স্কুলে যাওয়ার কথা ছিল তার। কিন্তু সে সুযোগ আর আসেনি। ধর্ষণের শিকার হয়ে লজ্জায়-অভিমানে পৃথিবী থেকেই বিদায় নেয় সে।

২৭ ডিসেম্বর নিজ ঘরে ডেকে সনিয়াকে ধর্ষণ করে প্রতিবেশী আসাদ খান। জানাজানি করলে মেরে ফেলার হুমকিও দেয় সে। সম্মান হারানোর লজ্জা থেকে রেহাই পেতে গায়ে আগুন ধরিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে সনিয়া। দগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। পরে নেয়া হয় ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে। রোববার জীবনের সাথে লড়াইয়ে হেরে যায় সপ্তম শ্রেণির এই ছাত্রী।

সনিয়ার মৃত্যুর পর থেকেই পলাতক আসাদ ও তার পরিবার। তবে মোবাইল ফোনে সনিয়ার পরিবারকে দেয়া হচ্ছে হুমকি-ধামকি দিচ্ছে বলে দাবি সনিয়ার মা শিউলী বেগমের। এ ঘটনায় ৪ জনের বিরুদ্ধে বাকেরগঞ্জ থানায় একটি মামলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বরিশালের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হুমায়ুন কবির। তবে ঘটনার এক সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে অপরাধীরা।

সনিয়ার শিক্ষক ও সহপাঠিরা বলেন, সনিয়াকে আত্মহত্যা করতে বাধ্য করা হয়েছে। জড়িতদের কঠোর শাস্তির দাবি জানান তারা।

 

 

 

 









Leave a reply