কিশোরগঞ্জে করোনা আক্রান্ত গুজব ছড়িয়ে চাঁদা দাবির অভিযোগ ২ এসআই’র বিরুদ্ধে

|

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি:
কিশোরগঞ্জের মিঠামইনে দুই এসআইয়ের বিরুদ্ধে ইতালি ফেরত প্রবাসী করোনাভাইরাস আক্রান্ত বলে গুজব ছড়িয়ে এক লাখ টাকা চাঁদা দাবি করার অভিযোগ উঠেছে। নয়তো হ্যাণ্ডকাপ লাগিয়ে থানায় নিয়ে যাওয়ার হুমকির ঘটনার ওই প্রবাসীর একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।

জানা যায়, মিঠামইন উপজেলার ঘাগড়া গ্রামে গিয়ে করোনাভাইরাস আক্রান্তের গুজব ছড়িয়ে মিঠামইন থানার দুই উপ-পুলিশ কর্মকর্তা ইতালি ফেরত এক প্রবাসীর কাছে এক লাখ টাকা ঘুষ দাবি এবং টাকা না দিলে হাতে হ্যাণ্ডকাপ লাগিয়ে থানায় নিয়ে যাওয়ার হুমকি দেন। এই ঘটনায় সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে ঝড় তুলেছে একটি ভিডিও।

শেখ ইকবাল হোসেন নামের ওই প্রবাসী সোশ্যাল মিডিয়ায় তার এ অভিযোগসম্বলিত বক্তব্য আপলোড করলে এটি ভাইরাল হয়ে তোলপাড় সৃষ্টি করে সমাজের সচেতন মহলে। দৃষ্টি কাড়ে পুলিশের ওপর মহলের। ভুক্তভোগী ও তার পরিবার এ ঘটনায় জড়িতদের বিচার চেয়েছেন।

এদিকে ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ে তদন্ত করা হচ্ছে বলে দাবি করেছেন জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ। অপরদিকে এ ঘটনাকে দুঃখজনক ও উদ্বেগজনক বললেন স্হানীয় সাংসদ।

জানা গেছে, গত ১৩ মার্চ বিকেল ৩টার দিকে মিঠামইন থানার এসআই নজরুল ইসলাম ও এসআই কিরণ উপজেলার ঘাগড়া বাজারে আসেন। এ সময় তারা জানতে পারেন ৭মার্চ ইতালি থেকে এ বাজার সংলগ্ন গ্রামের শেখ ইকবাল হোসেন বিদেশ থেকে বাড়িতে এসেছেন।

তখন তারা তার বাড়িতে গিয়ে তাকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বলে দাবি করে তার নিকট এক লাখ টাকা দাবি করেন। টাকা না দিলে তাকে হাতকড়া পরিয়ে থানায় নিয়ে যাওয়ার হুমকি দেন এই দুই পুলিশ কর্মকর্তা।

এ সময় শোরগোল শুনে এলাকার লোকজন এসে সংঘবদ্ধ হয়ে প্রতিবাদ করলে এ দুই পুলিশ কর্মকর্তা দ্রুত স্থান ত্যাগ করেন।

ঘাগড়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য ও ঘাগড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ ইকবাল জানান, ঘাটে-ঘাটে ডাক্তারের রিপোর্ট নিয়েই তিনি বাড়িতে এসেছেন ৮বছর পর। এখন পুলিশ এ করোনা গুজবকে পুঁজি করে তার নিকট ঘুষ দাবি করছে। তিনি জানান, এর পরেও তিনি নিজ গ্রামের বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টাইনেই সময় কাটাচ্ছেন।









Leave a reply