করোনা সতর্কতা: দেশে যা যা বন্ধ থাকছে, যতদিন বন্ধ থাকছে

|

করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে বিশ্বজুড়ে চলছে লকডাউন। পরিস্থিতি বিবেচনায় বাংলাদেশও বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। সরকারি প্রতিষ্ঠান, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, গণপরিবহন চলাচল বন্ধ থাকছে। বন্ধ হয়েছে আন্তর্জাতিক ও অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট। এক নজরে দেখে নেয়া যাক কী কী বন্ধ থাকছে, কতদিন বন্ধ থাকছে?

অফিস-আদালত: ২৬ মার্চ থেকে আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সকল অফিস-আদালত ব্ন্ধ থাকবে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান: ১৭ মার্চ থেকে আগামী ৯ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ। এর আগে ৩১ মার্চ পর্যন্ত সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের ঘোষণা দিয়েছিল মন্ত্রণালয়।

এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা: আগামী ১ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়ার কথা ছিল এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে সেটি স্থগিত করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। পরীক্ষার পরিবর্তিত সময়সূচি পরবর্তীতে জানানো হবে।

আন্তর্জাতিক ফ্লাইট: ২১ মার্চ দিবাগত রাত ১২টা থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত যুক্তরাজ্য, চীন, হংকং, থাইল্যান্ডের কিছু সংখ্যক ফ্লাইট ছাড়া সব দেশের সঙ্গে বিমান চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে।

অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট: ২৪ মার্চ রাত ১২টা থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ রাখা হচ্ছে দেশের সকল অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট।

ট্রেন: ২৪ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সব ধরনের যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকবে।

গণপরিবহন: ২৬ মার্চ থেকে আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সারা দেশের গণপরিবহন বন্ধ।

নৌযান: অনির্দিষ্টকালের জন্য নৌযান চলাচল বন্ধ।

গ্যাস-বিদ্যুৎ বিল: করোনাভাইরাসের কারণে জনগণের সুবিধার্থে ফেব্রুয়ারি থেকে মে- এই চার মাসের গ্যাস ও বিদ্যুৎ বিল আগামী জুনে জমা দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এজন্য, কোনো বিলম্ব মাশুল বা ফি দিতে হবে না নাগরিকদের।

বিপণি বিতান- শপিং মল: ২৫ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত বিপনি-বিতান ও শপিং মল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে সুপারশপ, ওষুধ, মুদি দোকান, কাঁচাবাজারসহ নিত্যপণ্যের দোকানপাট খোলা থাকবে।









Leave a reply