ট্রাম্পের ‘হাড়ির খবর’ নিয়ে প্রকাশিত হলো ‘ফায়ার এন্ড ফিউরি’

|

আইনি হুমকি উপেক্ষা করেই প্রকাশ করা হলো মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে নিয়ে লেখা বই। ‘ফায়ার অ্যান্ড ফিউরি : ইনসাইড দ্য ট্রাম্প হোয়াইট হাউজ’ নামক বইটির ওপর নিষেধাজ্ঞা আসার শঙ্কা থাকায় নির্ধারিত সময়ের ৪ দিন আগে গতকাল শুক্রবার এটি বাজারে ছাড়া হয়। লেখক সাংবাদিক মাইকেল ওলফের এ বইয়ে গত এক বছরের ট্রাম্প প্রশাসনের বহু গোপন তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। উঠে এসেছে পছন্দ-অপছন্দের নানা বিষয়ও।

বাজারে আসার সাথে সাথেই বইটি  হটকেকে পরিণত হয়েছে। নতুন প্রেসিডেন্টের এক বছর যেতে না যেতে না যেতেই হোয়াইট হাউজের অন্দর মহলের কথা জানতে আগ্রহের শেষ নেই মার্কিনীদের।

এক ক্রেতা বলেন, হোয়াইট হাউজ নিয়ে এমন বই আমি আগে দেখিনি। ২শ সাক্ষাৎকার আছে এতে। বইয়ের জন্য অপেক্ষা করতে পারিনি। আরেকজন বলেন, এ ধরনেই বই সবাই চায়। অনলাইনে বইটি সম্পর্কে পড়েছিলাম। পড়ে খুবই মজা পেয়েছি।

হোয়াইট হাউজের ভেতরকার নানা পর্যায়ের কর্মকর্তাদের অন্তত ২শ’টি সাক্ষাৎকারের ভিত্তিতে বইটি লেখেন সাংবাদিক মাইকেল ওলফ। তুলে ধরেন মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিষয়ে বহু চমকপ্রদ তথ্য। উঠে এসেছে নির্বাচনে জয়ের পর ট্রাম্পের দ্বিধা-দ্বন্দ্ব-আর ভীতির কথা। নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপের মতো সিরিয়াস ইস্যুর পাশপাশি রয়েছে ট্রাম্পের পছন্দ-অপছন্দের বিষয়ও।

বইটিতে থাকা চম্বুক কিছু তথ্য এরকম-

* পুরুষদের থেকে নারীদের বেশি বিশ্বাস করেন।
* সৌদিতে নতুন যুবরাজের উত্থানকে অভ্যুত্থান আখ্যা দেন।
* জয়ের পর ট্রাম্প ছিলেন হতাশ, দ্বিধাগ্রস্ত ছিলেন।
* তারকারা অভিষেক অনুষ্ঠান বর্জনের করায় ক্ষুব্ধ ছিলেন ট্রাম্প।
* হোয়াইট হাউজে ট্রাম্পের আলাদা শয়নকক্ষ, দরজায় তালা দিয়ে থাকেন।
* খাবারে বিষ মেশানোর ভয়ে ম্যাকডোনাল্ডসের খাবার খান।
* ট্রাম্প জুনিয়রের সাথে রুশ প্রতিনিধিদের বৈঠক হয়।
* ভবিষ্যত প্রেসিডেন্ট হতে চান মেয়ে ইভানকা।
* গোঁফ থাকার কারণে পররাষ্ট্রমন্ত্রী করেননি জন বোল্টনকে।

লেখক সাংবাদিক মাইকেল উলভ বলেন, প্রেসিডেন্টের সাথে আমার অনেক কথাই হয়েছে। তবে সেগুলো তিনি সাক্ষাৎকার হিসেবে নিয়েছেন কিনা না জানিনা । অবশ্য সেই কথাগুলো অফ দ্যা রেকর্ডও ছিল না। কর্মীদের সাথেও কথা হয়েছ। আর এখন বইটির প্রকাশনা বন্ধ করতে যাচ্ছে ট্রাম্প প্রশাসন। কিন্তু এতে কাটতি আরো বাড়িয়ে দিচ্ছেন তারা।

দেশজুরে আলোচনা-সমালোচনার মধ্যে ফায়ার অ্যান্ড ফিউরিকে পুরোপুরি মিথ্যা আখ্যা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। ট্রাম্পের সাথে লেখক ওলফের কথোপথন সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছে হোয়াইট হাউজ।

হোয়াইট হাউজের মূখপাত্র সারাহ হাকাবি বলেন, কখনোই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সাক্ষাৎকান নেননি মাইকেল ওলফ। অথচ বারবারই একই দাবি করে আসছেন। বইয়ে বিক্রি বাড়াতে মিথ্যা গল্প ফেদেছেন তিনি। বিষয়টি হতাশাজনক।

বইটির প্রকাশনা বন্ধে এরই মধ্যে পাঠানো হয়েছে আইনী নোটিশ। সমালোচকরা বলছেন বইটি ট্রাম্প প্রশাসনের বিশৃঙ্খলার কথাই প্রমাণ করে।









Leave a reply