রাশিয়া যে কৌশলে করছে করোনা মোকাবেলা

|

চীনের সঙ্গে দীর্ঘ সীমান্ত থাকার পরও রাশিয়াকে কাবু করতে পারেনি করোনাভাইরাস। দেশটিতে শনিবার পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন এক হাজার ২৬৪ জন। মারা গেছেন মাত্র চারজন।

ক্রেমলিনের মুখপাত্র জানিয়েছেন, ইউরোপের দেশগুলো চরম সংকটের মধ্যে রয়েছে। ভৌগোলিক অবস্থান অনুযায়ী রাশিয়ায় কার্যত আক্রান্তের সংখ্যা খুবই সীমিত।

বিশ্বজুড়ে ভয়াবহ পরিস্থিতি উপলব্ধি করেই দেশজুড়ে লকডাউন জারি করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। নাগরিকদের ঘরে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

করোনাভাইরাস নিয়ে রাশিয়া অনেক বেশি সতর্কতা অবলম্বন করছে। বৃহস্পতিবার পুতিন জাতির উদ্দেশে এক ভাষণে সপ্তাহব্যাপী বেতনসহ ছুটি ঘোষণা করেছেন। দেশটিতে সব ধরনের অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে। যাতে বেশি মানুষ একসঙ্গে সমবেত হতে না পারে।

পুতিন ভাষণের পর থেকে দেশে মাস্ক পরার সংখ্যাও বেড়েছে। সুপারমার্কেটের কর্মচারীরাও মাস্ক পরছেন। কফি শপগুলোতে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবহার বেড়েছে।

বর্তমানে এ পরিস্থিতি থাকলেও রাশিয়া আগে থেকেই সতর্ক রয়েছে। ৩০ জানুয়ারি প্রথম করোনা সংক্রমিত রোগী শনাক্তের পর রাশিয়া চীনের সঙ্গে থাকা দুই হাজার ৬০০ মাইল সীমান্ত বন্ধ করে দেয়। সেই সঙ্গে তৈরি করে কোয়ারেন্টিন জোন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, শুরুতেই এমন ব্যবস্থা নেয়ায় দেশটিতে সংক্রমণের সংখ্যা বৃদ্ধি পায়নি।









Leave a reply