ফেলানী হত্যাকাণ্ডের ৭ বছর, আজও বিচার পায়নি পরিবার

|

কিশোরী ফেলানী হত্যাকাণ্ডের ৭ বছর আজ। ২০১১ সালের এ দিনে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী-বিএসএফের গুলিতে প্রাণ যায় বাংলাদেশি এই কিশোরীর।

কুড়িগ্রামের অনন্তপুর সীমান্ত এলাকায় কাঁটাতারের বেড়ায় চার ঘণ্টা ঝুলিয়ে রাখা হয় ফেলানীর লাশ। সেই ছবি দেশি-বিদেশি গণমাধ্যমে প্রচার হলে সমালোচনার ঝড় ওঠে। হত্যাকাণ্ডের আড়াই বছর পর ভারতের কোচবিহারে বিশেষ আদালতে বিচারকাজ শুরু করে বিএসএফ। ২০১৩ সালের ৬ সেপ্টেম্বর বেকসুর খালাস পান অভিযুক্ত অমিয় ঘোষ। আবারো সমালোচনার ঝড় উঠলে পরের বছর পুনর্বিচারিক কার্যক্রমেও খালাসের রায় বহাল রাখা হয়। পরে ভারতীয় একটি মানবাধিকার সংগঠনের সহায়তায় দেশটির সুপ্রিম কোর্টে রিট আবেদন করেন ফেলানীর বাবা। ১৮ জানুয়ারি এ রিট পিটিশনের শুনানির দিন ধার্য করা আছে।









Leave a reply