জনসমাগম করে ইউপি চেয়ারম্যানের মাদকবিরোধী সভা

|

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি :

ঠাকুরগাঁওয়ে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্যকরে মাদকবিরোধী গণসমাবেশ করা হয়েছে। শুক্রবার বিকালে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা সালান্দর ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান মাহবুব আলম মুকুল এই গণসমাবেশের আয়োজন করেন। যেখানে স্থানীয় বিভিন্ন শ্রেণিপেশার প্রায় দুই শতাধিক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকার সারাদেশে সকল ধরনের সভা সমাবেশ নিষিদ্ধ করলেও ওই চেয়ারম্যান নিজ উদ্যোগে এমন কাজ করেছেন। এছাড়া চেয়ারম্যান শুক্রবার রাতে (সাড়ে ১০টা) তার ফেসবুক আইডিতে ‘মাদকবিরোধী’ সভার বেশকিছু ছবি আপলোড করেন। এরপরই বিষয়টি সকলের দৃষ্টিগোচর হলে, তিনি সেই ছবিগুলো সরিয়ে ফেলেন। এসব ছবিতে দেখা যায়, অনেকেই মুখে মাস্ক ব্যবহার করেছেন, অথচ খোদ চেয়ারম্যান মুকুলের মুখেই মাস্ক নেই। সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে গাদাগাদি করে মানুষজন বসে আছেন।

স্থানীয়রা জানান, ওই সভায় সালন্দর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহাবুব আলম মুকুলের সভাপতিত্বে সাবেক চেয়ারম্যান খাদেমুল ইসলাম, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ডা: মাজেদুল হক, সাধারণ সম্পাদক আবু দাইয়াম জনি, ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য শাহাবুদ্দিন, ৫ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সাহেব, ৭ নম্বরের ইউপি সদস্য বুলেট, গণ্যমাণ্যব্যক্তি সহ প্রায় দুইশতাধিক মানুষ উপস্থিত ছিল।

সভায় উপস্থিত ওই ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মিজানুর রহমান বলেন, চৌধুরীহাট এলাকায় কয়েকজন ব্যক্তি দীর্ঘ দিন ধরে মাদক ব্যবসা করে আসছিল। পুলিশ ওই মাদক ব্যবসায়ীদের অনেকবার গ্রেপ্তার করেছে ও তাদের নামেও একাধিক মামলাও রয়েছে। তারপরও তারা নানা কৌশলে এলাকায় মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। ওইসব মাদক ব্যবসায়ীদের বাড়িতে প্রতিদিন বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন যাতায়াত করছে। এতে করোনাভাইরাস সংক্রমণ হওয়ার আশঙ্কা ছিল। তাই এলাকায় মাদক ব্যবসা যাতে না করে এ নিয়ে শুক্রবার বিকালে ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে মাদকবিরোধী সভার আয়োজন করেন চেয়ারম্যান।

এবিষয়ে চেয়ারম্যান মাহাবুব আলম মুকুল জানান, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই এই মাদকবিরোধী সভাটি করা হয়েছে। মাদকবিরোধী সভায় ইউনিয়নে বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন। এলাকায় মাদক ব্যাবসায়ীদের উপদ্রব রোধে এই আয়োজন করা হয়েছিলো। সভায় এলাকার ওই মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে মুচলেকা নেয়া হয়েছে । মাদক ব্যাবসায়ীরা মাদকব্যবসা আর করবেনা বলে সকলের সামনে মুচলেকা দেন।

জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিম জানান, সরকার থেকে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে এই সঙ্কটময় সময়ে কোনভাবেই সভা সমাবেশ করা যাবেনা। কেউ যদি এই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সভা করে তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এবিষয়ে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহণর নির্দেশ দেয়া হয়ছে।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, তিনি বিভিন্ন মাধ্যমে বিষয়টি অবগত হয়েছেন। এমন সময়ে সভা করা চেয়ারম্যানের কোনভাবেই উচিত হয় নাই। এবিষয়ে খোঁজখবর নিয়ে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।









Leave a reply