বিগব্যাশ আউট নিয়ে সরগরম ক্রিকেট দুনিয়া


বিগব্যাশে বিরল এক আউটের সিদ্ধান্তে সরগরম ক্রিকেট দুনিয়া। ঘটনাটি গত বুধবারের। হোবার্ট হারিকেন ও ব্রিসবেন হিটের মধ্যেকার ম্যাচে টানটান উত্তেজনা। জিততে হলে ব্রিসবেনের দরকার ১৯ বলে ৪৯ রান। অ্যালেক্স রস মিডউইকেটে পুল করেই দৌড় শুরু করেন, উদ্দেশ্য দুই রান। ফিরতি যাত্রায় রান আউট থেকে বাঁচতে ডাইভ দেন তিনি। কারণ হারিকেনসের ফিল্ডার জোফ্রা আর্চার ততক্ষণে স্ট্রাইকিং প্রান্তে বিদ্যুৎ গতির থ্রো করেছেন। বল এসে লাগে ব্যাটসম্যান অ্যালেক্স রসের গায়ে। সেখান থেকে ছিটকে গিয়ে বল ভেঙ্গে দেয় উইকেট। টিভি রিপ্লেতে দেখা যায় উইকেটে আঘাত হানার আগেই রস ক্রিজে পৌছে গেছেন। তাই তিনি রান আউট হবেন না।

কিন্তু তবু আউট ঘোষণা করা হল রসকে। ক্রিকেটের পরিভাষায় এই আউটকে বলা হয় “অবস্ট্রাকিং দ্য ফিল্ড”। ব্যাটসম্যান যদি রানআউট থেকে বাঁচতে নিজের শরীর ব্যবহার করে বা ইচ্ছাকৃতভাবে বলের লাইনে এসে দাঁড়ায় তাহলে এই আইনে আউট দেয়া হয়। কিন্তু এই আইনেই উল্লেখ করা আছে যদি ব্যাটসম্যান বলের আঘাত থেকে বাঁচতে দিক পরিবর্তন করেন তবে আউট দেয়া যাবে না। এখানেই ব্রিসবেন এবং রসের আপত্তির যুক্তি নিহিত। খেলা শেষে এক টুইট বার্তায় অ্যালেক্স রস জানিয়েছেন “আমি পরিষ্কার বলতে পারি বলকে বাধা দেয়া আমার উদ্দেশ্য ছিল না,আমি শুধু আঘাত থেকে বাঁচতে অন্য দিকে দৌড়িয়েছি”।

ব্রিসবেন অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাককালাম অ্যালেক্স রসকে সমর্থন করে যুক্তি দিয়েছেন।তিনি বলেছেন,রস যদি ইচ্ছাকৃতভাবে বলটা আটকাতেই চাইতেন, তাহলে বাম দিকে না সরে তিনি যেতেন ডান দিকে,কারণ থ্রো এসেছিল ডান দিক থেকে ।এ থেকেই বোঝা যায় রস বাঁয়ে সরেছিলেন কেবল বলের আঘাত থেকে বাঁচতে।

আম্পায়ারের সিদ্ধান্তকে সম্মান দিয়ে রস প্যাভিলয়নে ফিরলেও তিনি ও তার দল এই আউটটি মেনে নিতে পারেন নি।এই গুরুত্ত্বপূর্ণ আউটটি ব্রিসবেনকে এত পোড়াচ্ছে কারণ ম্যাচটি তারা ৩ রানে হেরে গেছে।মূল্যবান দুই পয়েন্ট হারিয়ে ব্রিসবেন এখন পয়েন্ট তালিকার চার নম্বরে।ওই ম্যাচ না হারলে পয়েন্ট টেবিলে ব্রিসবেনের অবস্থান হত দ্বিতীয়।
“অবস্ট্রাকিং দ্য ফিল্ড”আউটের নজির আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খুব বেশী নেই,মাত্র আটজন ব্যাটসম্যানের কপাল পুড়েছে এই ক্রিকেটীয় আইনে।









Leave a reply