সৌদিতে কথিত হিজরতের চেষ্টা; জেএমবি’র ১৭ সদস্য গ্রেফতার

|

আটককৃত জেএমবির সদস্যরা

সৌদি আরবে কথিত হিজরতের চেষ্টাকালে ১৭ জেএমবি সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট। রাজধানীর কাকরাইল থেকে ৪ মে রাতে তাদের গ্রেফতার করা হয়। তাবলিগের নামে সৌদি আরব গিয়ে ইমাম মাহাদীর সাথে সাক্ষাতের আশায় একমাসেরও বেশি সময় ধরে হিজরতের চেষ্টা করে আসছিল তারা। এসময়, তাদের কাছ থেকে ১৯টি মুঠোফোন ফোন, ২ লক্ষ ৩৪ হাজার বাংলাদেশি টাকা ও ৯২২ আমেরিকান ডলার জব্দ করা হয়।

ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার ও কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মনিরুল ইসলাম জানান, ৪ তারিখ রাতে এই ১৭ জন জেএমবি সদস্যকে আগাম তথ্যের ভিত্তিতে আটক করা হয়। মোস্তাক মোহাম্মদ আরমান খান নামে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ও সৌদি আরবে বসবাসরত এক ব্যক্তির ফতোয়ায় উদ্বুদ্ধ হয়ে তারা বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরবে যাওয়ার চেষ্টা করছিল। ওমরাহ করার নামে এরমধ্যে বেশ কয়েকজন সৌদি আরবে গিয়ে তার সাথে দেখা করে আসেন। তাদের বিশ্বাস ছিল গজবের ফলে পৃথিবীব্যাপী ধোঁয়া উঠবে এবং তখন তারা সীমান্ত পাড়ি দিয়ে সৌদি আরব পৌঁছাবে।

তিনি জানান, এর আগে, সাতক্ষীরা সীমান্ত দিয়ে ভারত যাওয়ার জন্য তারা ৪০ দিন অপেক্ষা করে। পরবর্তীতে সেই মোস্তাক মোহাম্মদ আরমানের পরামর্শে সিলেট সীমান্ত দিয়ে তারা পাড়ি দেয়ার পরিকল্পনা করে। এরমধ্যে, ঢাকার কাকরাইল মসজিদের সামনে তারা ধরা পড়ে।

আটক জেএমবি সদস্যরা জানায়, পলাতক জেএমবি সদস্য ইন্জিনিয়ার আরমান ২০১৭ সালে সৌদি পাড়ি দেয়। সেখান থেকে সদস্য সংগ্রহ করার জন্য এদেরকে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে। তাদের পরিকল্পনা ছিলো তাবলিগ-জামায়াতের আড়ালে সাতক্ষীরা বা বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে তারা ভারত-কাশ্মির সীমান্ত হয়ে সৌদি আরব পৌঁছাবে। পরবর্তী তারা সিলেট দিয়ে বাংলাদেশ ত্যাগ করার পরিকল্পনা করে।









Leave a reply