নিলামে ৪২ লাখ টাকায় বিক্রি হলো মাশরাফীর সেই ব্রেসলেট

|

মাশরাফীর সেই ব্রেসলেট

মাশরাফীর সেই স্মৃতিময় ব্রেসলেট নিলামে বিক্রি হলো ৪২ লাখ টাকায়!

সামান্য একটি স্টিলের ব্রেসলেট কিনা নিলামে বিক্রি হলো ৪২ লাখ টাকায়!বিস্ময়ের ঘোর কেটে যাবে যখন জানবেন ব্রেসলেটের মালিক বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের মহানায়ক মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে ব্রেসলেটটি ব্যবহার করেছেন ম্যাশ। অনেক উত্থান-পতনের সাক্ষী এটি। গ্রামের দুরন্ত কৌশিক থেকে ক্রিকেট বিশ্বের ম্যাশ হয়ে ওঠা, একের পর ইনজুরি জয় করে, পৃথিবীর বাঘা বাঘা সার্জনকে হতবিহ্বল করে দিয়ে বোলিং রানআপে যাওয়া কিংবা ঘরের মাঠে বিশ্বকাপ না খেলতে পারার বেদনা- অসংখ্য সুখ-দুঃখের মাশরাফীর হাতে ছিল এই ব্রেসলেটটি। এমন একটা অমূল্য স্মৃতি কেনো নিলামে চড়ালেন মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা এমপি! করোনা পরিস্থিতিতে অসহায় হয়ে পড়া মানুষের জন্যই ম্যাশের এই স্যাক্রিফাইস।

রোববার দিবাগত রাতে ফেইসবুকে ‘Auction 4 Action’ পেইজ-এ নিলামে তোলা হয় মাশরাফীর নাম খোদাই করা ব্রেসলেটটি। ভিত্তিমূল্য ছিল ৫ লাখ টাকা। ডাকের পর ডাক ওঠে, শেষ পর্যন্ত সেটি বিক্রি হলো ৪২ লাখ টাকায়! কিনেছে দেশের আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন বিএলএফসিএ। এই অর্থ দিয়ে মাশরাফির ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’ ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে সহায়তা করা হবে করোনাভাইরাসের এই দুঃসময়ে অসহায় মানুষদের।

তবে নিলামে বিক্রি হলেও ব্রেসলেট থাকছে ম্যাশের হাতেই। বিএলএফসিএর চেয়ারম্যান মমিন উল ইসলাম লাইভে যুক্ত হয়ে জানিয়েছেন, এই ব্রেসলেট কিনে নিয়ে তারা আবার মাশরাফিকেই উপহার দিতে চান।

তিনি বলেন, মাশরাফীর এই ব্রেসলেট অমূল্য। তবু আমরা আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠনের পক্ষ থেকে তার এই উদ্যোগের পাশে দাঁড়াতে চেয়েছি। তাকে সম্মান জানাতে চেয়েছি। আমরা এই উদ্যোগের অংশ হতে পেরে আমরা আনন্দিত।

জানা গেছে, প্রায় দেড় যুগ আগে কাছের এক বন্ধুর মামাকে দিয়ে মাশরাফী এই ব্রেসলেট বানিয়ে নেন। এরপর দীর্ঘ পথচলায় কম সময়ের জন্যই এটি খুলেছিলেন হাত থেকে। করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে নিজের এলাকার মানুষের জন্য কিছু করার তাগিদে এটিকে বিসর্জন দেয়ার সিদ্ধান্ত নিলেও আনন্দের বিষয় হলো শেষ পর্যন্ত ম্যাশের ব্রেসলেট তার হাতেই থাকছে।









Leave a reply