নিজ শহরে বাবা-মায়ের পাশেই চিরনিদ্রায় কামরান

|

নিজ শহরে দুটি জানাজা শেষে বাবা-মায়ের কবরের পাশেই দাফন করা হয়েছে করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র এবং আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বদর উদ্দিন আহমদ কামরানকে।

সোমবার জোহরের নামাজ শেষে নগরের ছড়ারপার জামে মসজিদে তার প্রথম জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। স্বাস্থ্যবিধি মেনে কিছু সংখ্যক মানুষ জানাজার নামাজে অংশগ্রহণ করেন। বেলা দুইটার দিকে হযরত মানিকপীর (রহ.) গোরস্থানে দ্বিতীয় জানাজা শেষে কামরানকে দাফন করা হয়।

সকাল থেকেই সিলেটের বর্ষীয়ান এই রাজনীতিবিদকে শেষ বিদায় জানাতে তার বাসায় জড়ো হন সর্বস্তরের মানুষ। তারা প্রয়াত এই নেতার মাগফেরাত কামনা করেন। করোনাভাইরাসের কাছে হার মেনে সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের টানা ১৭ বছরের এই সভাপতির চলে যাওয়াটা স্বাভাবিক ভাবে নিতে পারছে না তারা।

এর আগে বেলা ১২টার কিছু পরে লাশবাহী আ্যাম্বুলেন্সটি কামরানের তার নিজ শহরে পৌঁছায়। সকাল সাড়ে ছয়টায় হাসপাতাল থেকে সব আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে সিলেটের পথে রওনা দিয়েছিল তাকে বহনকারী আ্যাম্বুলেন্স। লাশ পৌঁছার সঙ্গে সঙ্গে আগে থেকেই বাসার সামনে অপেক্ষমাণ নেতাকর্মী ও স্থানীয় লোকজন একনজর দেখার জন্য অ্যাম্বুলেন্স ঘিরে ধরেন।

রোববার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। গত পাঁচ জুন সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নমুনা পরীক্ষায় আওয়ামী লীগের সক্রিয় এ নেতার করোনা শনাক্ত হয়। তার আগে গত ২৭ মে তার স্ত্রী আসমা কামরানের করোনা শনাক্ত হয়েছিল। এরপর থেকেই আইসোলেশনে ছিলেন কামরান।









Leave a reply