করোনার জীবাণু ধ্বংসে কিট উদ্ভাবনের দাবি দুই বাংলাদেশি গবেষকের

|

বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ ও বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষক করোনা ভাইরাস ইনএক্টিভেটিং এন্ড কিলিং কিটস বা ‘কোভিড কিট’ নামে একটি যন্ত্র উদ্ভাবনের চেষ্টা করছেন। যেটি ব্যবহারে করোনা রোগীদের কাছ থেকে শ্বাস প্রশ্বাসের মাধ্যমে ভাইরাসটি ছড়াবে না বলে তাদের দাবি।

তবে বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিলের (বিএমআরসি) বলছে, বৈজ্ঞানিকভাবে যন্ত্রটিকে আরও আধুনিক করা প্রয়োজন। ডিভাইসটি ব্যবহারে করোনা রোগী আরও অস্বস্তিতে ভুগতে পারেন।

সংক্রমণ এড়াতে সবাই যখন সচেষ্ট তখন এই দুই শিক্ষকের দাবি তাদের আবিষ্কৃত যন্ত্র ব্যবহারে কমবে আক্রান্তের শঙ্কা। রোগীর নিঃশ্বাস থেকে নির্গত কার্বন ডাই অক্সাইড পুরোপুরি করোনাভাইরাস মুক্ত হয়ে বাতাসে মিশবে।

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োকেমিস্ট্রি বিভাগের চেয়ারম্যান ও সহকারী অধ্যাপক ড. রেহানা পারভিন বলেন, দুটি নলের মধ্যে বাতাস জারে প্রবেশ করবে সেখানে জীবাণুনাশক ভাইরাসটিকে কিল করবে।

শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের রেজিস্টার ডাঃ এইচএম মাসুম বিল্লাহ বলেন, এটি ব্যবহার করলে আইসোলেশনে থাকতে হবে না। সবখানে যেতে পারবে সব কাজ করতে পারবে।

বুয়েটের বায়োমেডিকেল প্রকৌশল বিভাগ ডিভাইসটি ব্যবহারে ইতিবাচক সাড়া দিয়েছে বলে দাবি উদ্ভাবকদের।

তবে যারা ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের জন্য ছাড়পত্র দেবেন, সেই ‘বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিল -বিএমআরসি’ বলছে ভিন্ন কথা।

বাংলাদেশ চিকিৎসা গবেষণা পরিষদের পরিচালক ডা: মাহমুদ-উজ-জাহান বলেন, বুয়েট যন্ত্রটা ফিজিক্যালি দেখবে। যন্ত্রসহ আমাদের এখানে জমা দিতে হবে।

তবে, করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সংশ্লিষ্টদের এমন উদ্ভাবনী চিন্তাকে সাধুবাদ জানায় বিএমআরসি।









Leave a reply