‘ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যাপ্লিকেশনস’-এ বিশ্বের শীর্ষ ৫০ বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ইউল্যাব

|

ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটিজ উইথ রিয়েল ইমপ্যাক্ট (ডব্লিউইউআরআই) র‍্যাংকিং ২০২০-এ ‘ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যাপ্লিকেশনস’ ক্যাটাগরির আওতায় বিশ্বের শীর্ষ ৫০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে স্থান পেয়েছে বাংলাদেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ইউল্যাব (ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস)। এই র‍্যাংকিংয়ে স্থান পাওয়া একমাত্র বাংলাদেশি বিশ্ববিদ্যালয় ইউল্যাব।

সম্প্রতি দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ডব্লিউইউআরআই-এর প্রকল্প পরিচালক অধ্যাপক মুন হোয়াই চ্যাং এ ঘোষণা দেন। এসময় তিনি জানান, ‘ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যাপ্লিকেশনস’ ক্যাটাগরির আওতায় বিশ্বের শীর্ষ ৫০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে রয়েছে ইউল্যাব।

এই ক্যাটাগরির আওতায় থাকা শীর্ষ পাঁচ বিশ্ববিদ্যালয় যথাক্রমে হলো— স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়, ম্যাসাচুসেটস ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজি, মিনার্ভা স্কুলস অ্যাট কেক গ্রাজুয়েট ইন্সটিটিউট, ক্যালিফোর্নিয়া ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজি এবং অ্যারিজোনা স্টেট ইউনিভার্সিটি (যুক্তরাষ্ট্র)। শীর্ষ পাঁচের সবকটিই যুক্তরাষ্ট্রের।

তালিকায় ইউল্যাবের অবস্থান ৪৬তম। ইন্ড্রাস্ট্রিয়াল অ্যাপলিকেশনস ক্যাটাগরিতে সুযোগ পাওয়ায় ইউল্যাব ডব্লিউইউআরআই শীর্ষ একশ’ বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকার জন্যও বিবেচনার যোগ্য হবে।

জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের মিডিয়া স্টাডিজ অ্যান্ড জার্নালিজম বিভাগের মাস্টার্স ইন কমিউনিকেশন প্রোগ্রামের থিসিসকে উপজীব্য করে এই র‍্যাংকিংয়ে প্রবেশ করতে সক্ষম হয়েছে ইউল্যাব। উদ্ভাবনী ও সৃজনশীল কায়দায় তৈরি করা এই প্রোগ্রামে শিক্ষার্থীরা দুই বছর সময় ব্যয় করতে পারে। তাদেরকে সাতটি ধাপে এ প্রক্রিয়া সম্পাদন করতে হয়: আইডিয়া ইনকোয়ারি বা ধারণাগত অনুসন্ধান (টার্ম ওয়ান); প্রপোজাল রাইটিং বা প্রস্তাবনা তৈরি (টার্মস ওয়ান, টু, থ্রি); প্রপোজাল হিয়ারিং বা প্রস্তাবনা শোনা (টার্ম ফোর); থিসিস রাইটিং (টার্ম ফাইভ ও সিক্স); প্রেজেন্টেশন অ্যান্ড ডিফেন্স (টার্ম সিক্স); পর্যালোচনা ও চূড়ান্তকরণ (টার্ম সিক্স) এবং টার্ন ওভার (টার্ম সিক্স এর শেষ ভাগ)।









Leave a reply