জীবিত উদ্ধার ব্যক্তিকে সলিমুল্লাহ মেডিকেলে ভর্তি

|

লঞ্চ দুর্ঘটনার প্রায় ১৩ ঘণ্টা পর অলৌকিকভাবে বেঁচে ফিরলেন এক যাত্রী। মূমুর্ষ অবস্থায় তাকে ভর্তি করা হয়েছে স্যার সুলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।

সোমবার রাত সাড়ে দশটার দিকে তাকে উদ্ধার করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেন ফায়ার সার্ভিসের উপ পরিচালক দেবাশীষ বর্ধন। তিনি জানান, সুমন ব্যাপারী নামের ঐ যাত্রীকে ডুবে থাকা লঞ্চের ইঞ্জিন রুম থেকে উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরীরা।

এর আগে ফায়ার সার্ভিস জানায়, ৭টি এয়ারলিফটিং বেলুনের মাধ্যমে লঞ্চটি তুলে সুমন বেপারিকে উদ্ধার করা হয়। মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার গ্রামের বাড়ি মুন্সিগঞ্জের টঙ্গিবাড়ি এলাকায়।

ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা প্রথমে চারটি এয়ার লিফটিং ব্যবহার করে জাহাজটিকে অনেকটুকু উপরে তোলার পর একটি এয়ার লিফটিং ছিড়ে গেলে অতিরিক্তি আরো ২টি এয়ার লিফটিং ব্যবহার করে মোট ৬টি এয়ার লিফটিং দিয়ে জাহাজটিকে অনেকাংশে তোলার পর জাহাজের ভেতরে ঢুকে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল। সেখানে তেল মবিল গায়ে মাখা অবস্থায় এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করা হয়েছে। পরে দেখা যায়, তিনি জীবিত, চোখ নাড়ছেন।









Leave a reply