নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পেল বিডিএস

|

এ বছর নোবেল শান্তির পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পেয়েছে ফিলিস্তিনিদের অধিকারের জন্য সংগ্রামরত আন্তর্জাতিক সামাজিক আন্দোলন ‘বয়কট, ডিভেস্টমেণ্ট এন্ড স্যাংশন্স’- যাকে সংক্ষেপে ‘বিডিএস আন্দোলন’ বলা হয়।

নরওয়ের পার্লামেন্টের সদস্য জুরিনার মোক্সনেস নরওয়েজিয়ান কমিটির কাছে এ মনোনয়ন জমা দেন। দেশটির রেড পার্টির নেতা মোক্সনেস বলেন, ‘বিডিএস অহিংসভাবে ন্যায় ও শান্তির জন্য কাজ করছে। এবছর নোবেল শান্তি পুরস্কার বিডিএস’কে দেয়া হলে মধ্যপ্রাচ্য, বিশেষ করে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনিসহ গোটা বিশ্বের কাছেই এই বার্তা যাবে যে, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় বিডিএসের পাশেই আছে।’

এ বিষয়ক নরওয়ের সংসদীয় দলের তরফ থেকে বলা হয়েছে,‘ফিলিস্তিনিদের মুক্তি ও মর্যাদা রক্ষার সংগ্রাম বিশ্বব্যাপী সমর্থন ও সংহতি পাচ্ছে। বিডিএস’কে নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন প্রদান এই সংহতিরই প্রতিফলন।’

নোবেল পুরস্কারের জন্য বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংস্থাকে মনোনয়ন দেয়ার পর সেই তালিকা থেকে নোবেল কমিটি সেপ্টেম্বর-অক্টোবর মাস নাগাদ সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করবে। মোক্সনেস আশা করছেন, বিডিএস এর পক্ষে জনমত গঠিত হলে সংক্ষিপ্ত তালিকাতেও অবশ্যই এর স্থান হবে।

ফিলিস্তিনিদের স্বাধীনতা, সাম্য ও শান্তির দাবিতে অহিংস আন্দোলন চালিয়ে আসছে আন্তর্জাতিক আন্দোলন ‘বয়কট, ডিভাস্টমেণ্ট এন্ড স্যাংশন্স (বিডিএস)’। সংগঠনটি ১১ বছর আগে দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবাদবিরোধী অহিংস আন্দোলন থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে জন্ম লাভ করে।

বিশ্বের প্রায় ৫০টি দেশের বিভিন্ন ইউনিয়ন, সংস্থা, বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগঠন ও গির্জাসহ আরও নানা মানবাধিকার আন্দোলনের সমর্থন পেয়েছে বিডিএস। অধিকৃত ফিলিস্তিনে ইহুদী বসতি নির্মাণের প্রতিবাদ করে আসছে সংগঠনটি।

বিশ্ব পরাশক্তির বিরুদ্ধে ইসরায়েল-তোষোণের অভিযোগ করে বিডিএস অনেক দিন ধরেই আন্তর্জাতিক আইন মানতে ইসরায়েলকে বাধ্য করার দাবি জানাচ্ছে।









Leave a reply