খালেদা জিয়ার কারাবাসকালীন যেভাবে চলবে বিএনপি

|

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসনকে আদালত সাজা প্রদান করেছে। বর্তমানে খালেদা জিয়া কারাগারে থাকায় দল কিভাবে পরিচালিত হব- এ প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

গঠনতন্ত্র অনুয়ায়ী ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমানই এখন দলের সর্বোচ্চ নেতা। কিন্তু শিগগিরই তার দেশে ফেরার সম্ভাবনা কম। এমন পরিস্থিতিতে বিএনপির হাল কে ধরবে?

বিএনপি নেতারা বলছেন, চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া যেখানে যে অবস্থায়ই থাকুক না কেন- তার নেতৃত্বেই পরিচালিত হবে বিএনপি। গঠনতন্ত্র অনুয়ায়ী দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের মতামত নিয়ে রুটিন কাজ করবে সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী ফোরাম- স্থায়ী কমিটি।

চেয়ারপারসনের জামিন না হওয়া পর্যন্ত স্থায়ী কমিটির কয়েকজন সদস্যের যৌথ পরামর্শে প্রাত্যহিক কাজ কর্ম চালিয়ে যাবেন। তবে এসময়ে তারা কোন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন না।

বিএনপি ভাইস-চেয়ারম্যান আহমেদ আযম খান বলেন, খালেদা জিয়া জেলে আছেন- এর অর্থ নয় তিনি দলের নেতৃত্বে নেই। তিনি যেখানেই থাকুন দল পরিচালনা করবেন, তিনি আমাদের সাথে আছেন।

গত ৩ ফেব্রুয়ারি জাতীয় নির্বাহী কমিটির বৈঠকে দল, আন্দোলন আর আসন্ন জাতীয় নির্বাচন নিয়ে বিস্তারিত দিক নির্দেশনা দেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। রায় হওয়ার পর দলকে আরও কিভাবে সংগঠিত করা যায়, কিভাবে চেয়ারপারসনের নির্দেশায় নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ রাখা যায়- তা নিয়ে এখন কাজ করছেন নেতারা।

সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু জানিয়েছেন, গঠনতন্ত্র অনুয়ায়ী দল পরিচালনার কথা বলেন খালেদা জিয়া। খালেদা জিয়াই সব সময় সর্বোচ্চ নেতৃত্বে থাকবেন। এছাড়া গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পরামর্শ নিয়ে কার্যক্রম চালানো হবে।

গত বুধবার রাতে দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠকেও এ নিয়ে আলোচনা হয়। খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে কারো একক নেতৃত্বের পরিবর্তে যৌথভাবে দল পরিচালানার কথা বলেন খালেদা জিয়া।

দলের একটি অংশ চায় তারেক রহমানের স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমানের হাতে নেতৃত্ব দিতে। যদিও নীতি-নির্ধারণী পর্যায়ের অনেকেই তা চান না। কারণ, বিএনপি নেতাকর্মীদের বিশ্বাস শিগগিরই মুক্ত হবেন খালেদা জিয়া।









Leave a reply